দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া ভ্রমণের যত সংকট: পরিত্রাণের উপায়? পর্ব-১

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলো ভ্রমণের সময় সম্ভাব্য সকল কেলেঙ্কারি সম্পর্কে এই প্রতিবেদনে আলোচনা করা হয়েছে।  সংকটগুলোর মধ্যে কয়েকটি খুবই ভয়ংকর, যা আপনার ভ্রমণকে নষ্ট করে দিতে পারে। আর বাকিগুলো তেমন গুরুতর নয়। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াতে পর্যটকদের জন্য অনেক আকর্ষণীয় স্থান রয়েছে। আর তাই এসকল স্থানে ভ্রমণের সময় আপনার জন্য অপেক্ষমাণ সংকটগুলো আগে থেকেই জেনে রাখা জরুরী। এসকল অঞ্চলের অধিকাংশ মানুষই বন্ধুসুলভ তবে এমন মানুষের সংখ্যাও নেহাত কম নয় যারা আপনাকে নিছক ১০০ ডলারের বিল হিসেবে দেখবে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া ভ্রমণের সব সংকট, পরিত্রাণের উপায়ের ৩ পর্বের প্রথম পর্ব থাকছে আজকে।

১. ব্যাংককের পিং পং শো

ব্যাংককের রেড লাইট এরিয়াতে গেলে দেখবেন সেখানে অগণিত মানুষ রাতের বিনোদনের জন্য চটকদার সব অফার নিয়ে আপনার সামনে হাজির হয়েছে। তারা পিং পং শোতে আপনাকে নিয়ে যাওয়ার জন্য টোপ ফেলবে। একবার যদি তারা বুঝতে পারে আপনি দ্বিধাগ্রস্ত তবে এমন কথাও বলবে যে শোতে প্রবেশের জন্য কোনো মূল্য দিতে হবে না শুধু ড্রিংক্স আর খাবারের মূল্য দিয়েই এই শো উপভোগ করতে পারবেন। আর এই চটকদার অফারে রাজি হয়ে গেলে আপনার জন্য খারাপ সব অভিজ্ঞতা অপেক্ষা করছে।
কেননা না এই সকল স্থানে পিং পং শোতে দেখার মতো কিছুই নেই, বরং বিরক্ত হবেন। আপনি সব শেষে ভাবতেই পারেন বিল ৬০ বাথের (২ ডলার) বেশি হবে না। ওরা আপনার কাছে কমপক্ষে ২, ০০০ বাথ (৬০ ডলার) দাবী করে বসবে। এর থেকে বেশিও হতে পারে। এই উচ্চ মূল্য পরিশোধ না করতে চাইলে আপনাকে যে নিয়ে গেছে তাকেও আর খুঁজে পাবেন না, কেননা ততক্ষণে সে চম্পট দিয়েছে। অগত্যা আপনাকে আক্কেল সেলামী গুনতে হবে।

পরিত্রাণের উপায়:

কোনোভাবেই এই ধরনের অফার গ্রহণ করবেন না। আর পিং পং শো দেখতে চাইলে এমন জায়গাতে যান যেখানে এই শো এর সুনাম আছে। আপনাকে হয়তো একই পরিমাণ অর্থ প্রদান করতে হবে তবে পয়সাও তো উসুল করতে পারবেন।

ব্যাংককের রেড লাইট এরিয়া, ছবি সূত্রঃ পাসপোর্ট সিমফোনি

২. শিশু

শিশুরা সবসময়ই আমাদের জন্য সুন্দর, আদরের ও নিরাপদ। তবে এমন অনেক শিশুও আছে যাদের ছোট্ট বেলা থেকেই চুরি ও হঠকারিতার প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। কম্বোডিয়ার রাজধানী নমপেনের এক বারের বাইরে কয়েকজন পর্যটকদের ঘিরে ৫ শিশু নাচছিল। এদের মধ্যেই এক শিশু পর্যটক নারীর ব্যাগ থেকে টাকা চুরি করে। শিশুটি যে ব্যাগ থেকে টাকা নিয়ে যাচ্ছে ওই পর্যটক তা টেরও পাননি। পাশের একজন এই ঘটনা দেখে ফেলাতে শিশুটি হাতে নাতে ধরা পড়ে। এটা খুবই সাধারণ ঘটনা, কারণ অধিকাংশ ক্ষেত্রেই শিশুদের চুরি করতে ব্যবহার করা হয়। এছাড়া অনেক শিশুকেই দেখা যায় টাকার পরিবর্তে দুধ কিংবা খাবার চাইতে। আপনি যদি তাঁদের খাবার কিনে দেন তবে সে পরে ওই দোকানে খাবার দিয়ে মূল্য ফেরত নেবে।

পরিত্রাণের উপায়:

শিশুদের থেকে পরিত্রাণের কোনো বিষয় নেই। আপনাকে শুধু শিশুদের সঙ্গে যে কোনো ধরনের যোগাযোগের সময় সতর্ক থাকতে হবে।

চঞ্চলমতি শিশু, সূত্রঃ পাসপোর্ট সিমফোনি

৩. বাসে সংকট

থাইল্যান্ড ও কম্বোডিয়াতে বাসে চড়ার দুটি সংকট রয়েছে। দেশ দুটির বর্ডার ক্রস করার সময় বাসের ড্রাইভাররা ধীর গতিতে বাস চালাবে কিংবা যাত্রা বিরতিও দিতে পারে, যেন বর্ডার কিংবা পানি পথে নৌকা ও ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে আপনাকে বর্ডার পুনরায় কখন খুলবে তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে। আর কাকতালীয়ভাবে ওই বাসের ড্রাইভারের বন্ধুর রেস্ট হাউস কিংবা কোনো রিসোর্ট খুব কাছেই থাকবে। সেখানে থাকতে ওই ড্রাইভার আমন্ত্রণ জানাবে।
থাইল্যান্ড ও কম্বোডিয়াতে দ্বিতীয় সমস্যা হলো ভিআইপি টিকিটের বাস। এই বাসগুলো অধিকাংশ সময় পথের মধ্যে নষ্ট হয়ে যায়। অগত্যা আপনাকে সাধারণ বাসেই উঠতে হবে। আর সেই টিকিটের রিফান্ডও পাবেন না।

পরিত্রাণের উপায়:

প্রথম সংকট থেকে পরিত্রাণের তেমন কোনো উপায় নেই। তবে বাসে ওঠার আগে স্থানীয় যারা বর্ডার পার হবেন এমন মানুষের সাথে যাতায়াতের চেষ্টা করলে সমাধান পেতে পারেন। আর দ্বিতীয় ক্ষেত্রে ভিআইপি বাস এড়িয়ে সাধারণ বাস ব্যবহার করুন। এই বাসগুলোও খারাপ নয়।

কম্বোডিয়াতে বাসে, ছবি সূত্রঃ webtretho.com

৪. চুরি

দিল্লি ও হো চি মিন সিটিতে চুরির ব্যাপক প্রকোপ রয়েছে। এই প্রকোপ আমাদের প্রিয় শহর ঢাকাতেও নেহায়েত কম নয়। ঢাকার মতো দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অনেক শহরের মোবাইল ফোন চুরির সমস্যাটি রয়েছে। এর মানে বিদেশেও আপনার প্রিয় ফোনটি চুরি হতে পারে। দিল্লি ও হো চি মিন সিটিতে স্কুটারে চড়ে এই চোরেরা এসে আপনার ফোন কিংবা পুরো ব্যাগটাই টান দিয়ে নিয়ে পালিয়ে যেতে পারে। তারা আপনার থেকে অবশ্যই দ্রুত গতির। আর দুর্ঘটনা ঘটার পর আপনার করার তেমন কিছুই থাকবে না। কেননা এই ঘন বসতি পূর্ণ শহরগুলোতে চোর ধরা প্রায় অসম্ভব।

পরিত্রাণের উপায়:

এই উপদেশ আপনি হাজারো বার শুনেছেন। সাবধানে থাকুন! আপনার জিনিসপত্র চোখের আড়াল হতে দেবেন না। হাতের ফোন অথবা ব্যাগটি শক্ত করে ধরে রাখুন। নিরাপদ স্থানে গিয়ে ফোনে কথা বলুন।

হো চি মিন সিটিতে স্কুটার, সূত্রঃ পাসপোর্ট সিমফোনি

৫. মাদক বিক্রেতা থেকে সাবধান

এটা খুবই জনপ্রিয় ও ভয়ংকর কেলেঙ্কারি যা আপনাকে গুরুতর বিপদে ফেলতে পারে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অনেক শহরের রাস্তাতেই খুবই সাধারণ দেখতে লোকজন আপনাকে মাদক অফার করতে পারে। অনেকে সারাদিনের ধকলের পর প্রশান্তির জন্য মাদক কিনতে চান। ঠিক তখনই কিন্তু কোনো না কোনো পুলিশ আপনার উপর নজর রাখছে। মাদক কেনার পরপরই আপনার তল্লাশি হবে এবং আপনার পকেট থেকে সদ্য ক্রয়কৃত মাদক পুলিশ উদ্ধার করবে। অনেক পুলিশ আপনাকে উৎকোচ প্রদানের সুযোগও দেবে নতুবা দীর্ঘ আইনি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে আপনাকে। একজন পর্যটক হিসেবে এই উৎকোচের পরিমাণ অনেক সময় ৫০০ ডলারও ছাড়িয়ে যায়।

গ্রেপ্তারের প্রতীকী ছবি, সূত্রঃ dunyanews.tv

ফিচার ইমেজ- পাসপোর্ট সিমফোনি

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কেরালা: এক ভিন্ন ভারতের গল্প

বিশ্বের সুন্দর কয়েকটি খাল