স্কিয়িং এবং স্নো-বোর্ডিংয়ের জন্য সেরা ৭টি স্থান

ভূ-প্রাকৃতিক অবস্থানের কারণে আমাদের দেশে কনকনে শীতে হাত-পা ঠাণ্ডা হয়ে আসলেও তুষারপাতের আশংকা নেই বললেই চলে। কিন্তু কারও কারও কাছে যেটা আশংকা, অনেকের কাছে সেটাই পরম আকাঙ্ক্ষার বিষয়। ছোটবেলা থেকে হলিউডের সিনেমায় তুষারের মধ্যে জেমস বন্ডের টান টান উত্তেজনাময় কোনো দৃশ্য কিংবা নায়ক-নায়িকাদের প্রেম নিবেদন দেখে বড় হওয়ায় তুষারপাত ব্যাপারটা আমাদের স্মৃতির মাঝে ইতিবাচক হিসেবেই রয়েছে। তাই তুষারে ঘেরা বিস্তৃত পথ বা পাহাড়ি ঢালের পাশাপাশি সেইসব ঢালে স্কিয়িং বা স্নো-বোর্ডিংয়ের সুবিধা পাওয়া যায়, তাহলে তো একেবারে সোনায় সোহাগা!

স্কিয়িংয়ের আনন্দ; সূত্র: Alltracks Academy

বিশ্বব্যাপী স্কিয়িং এবং স্নো-বোর্ডিংয়ের জন্য প্রখ্যাত দর্শনীয় স্থানগুলো নিয়েই লিখছি আজকের লেখা।

দিওগুসান, দক্ষিণ কোরিয়া

দিওগুসান স্কি রিসোর্টের একাংশ; সূত্র: Korea Tourism Organization

দিওগুসান স্কি রিসোর্টের অবস্থান দিওগুসান পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত। রিসোর্টটির পূর্বের নাম ছিল মুজু। রিসোর্টটি যে পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থান করছে সেটি আবার বন্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর গুচেও-ডং ভ্যালির অন্তর্ভুক্ত। যারা নিয়মিত হাইকিং এবং স্কিয়িং করে অভ্যস্ত অর্থাৎ অভিজ্ঞ, তাদের অবশ্যই সিল্ক রোডের ঢাল দিয়ে যাওয়া রাস্তাটা ধরে স্কিয়িং করা উচিত। এটি প্রায় ৬.১ কিলোমিটার দীর্ঘ, এই স্কিয়িং রিসোর্টের মধ্যে সবচেয়ে বড় ঢাল।

এছাড়া আপনি যদি খাড়া ঢাল বেয়ে স্কিয়িং করার মতো অ্যাডভেঞ্চারের মধ্যে দিয়ে যেতে চান কিংবা বলা ভালো, অতটা অভিজ্ঞ হন, তাহলে এখানকার রাইডার্স কোর্স আপনার জন্য! দিনশেষে রিসোর্টের উষ্ণ ঝর্ণার পানিতে শরীর শ্রান্ত করার মাধ্যমে দারুণ একটি দিন কাটাতে পারবেন এখানে এসে!

অকাইমেডেন, মরক্কো

মরুর বুকে স্কিয়িং! সূত্র: CNN.com

মরুদেশ মরক্কোতে এটি এক ভিন্নরকম অভিজ্ঞতা। মারাকেশ শহর থেকে ৮০ কিলোমিটার দক্ষিণে টিচি অকাইমেডেন রিসোর্টটির অবস্থান। শহর থেকে ডে ট্রিপে সবচেয়ে বেশী সংখ্যক পর্যটক এখানেই বেড়াতে আসে। এখানের স্নো-বোর্ডিং বা স্কিয়িংয়ের জন্য সবচেয়ে দীর্ঘ রাস্তাটি প্রায় ৩ কিলোমিটার দীর্ঘ। এখানকার এই ঢালগুলো কিন্তু ইউরোপের মতো অত সুনিপুণভাবে নির্মিত না।

তবে আপনি যদি কোনোদিন বন্ধুদের আড্ডায় কিংবা ছেলেমেয়েদের গল্প শোনাতে গিয়ে বলতে চান যে, আফ্রিকান সূর্যের তাপের নিচে আপনি স্কিয়িং কিংবা স্নো-বোর্ডিং করেছেন, এরকম প্রায় আজগুবি কিন্তু অবশ্যই সম্ভব দাবিটি করতে পারার জন্য হলেও এখানে অন্তত একবার স্কিয়িং করতে আসে প্রচুর পর্যটক।  

হোক্কাইদো, জাপান

স্কি রিসোর্ট থেকে দেখা পাহাড়; সূত্র: hokkaido-hotels.com

জাপানের সর্ব উত্তরের একটি দ্বীপ হোক্কাইদো। শীতকাল এলে ভারী তুষারপাতে ডুবে থাকে পুরো দ্বীপ শহরটি। ফলে প্রতি বছর বহু পর্যটকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে এটি। একই সাথে এখানকার ভালো মানের রিসোর্টগুলোতে কিছুদিন আরামে কাটিয়ে দেওয়ার জন্যে হলেও। রিসোর্টগুলোর মধ্যে নিসেকো ইউনাইটেড আকারে সবচেয়ে বড়। মাউন্ট ইয়োতোইয়ের কারণে রিসোর্টটি চোখের আড়ালে ঢাকা পড়ে যায়।

তবু এর জনপ্রিয়তা কমে যায়নি বরং কাছ থেকে ইয়োতোই পর্বত দেখার লোভে বহু পর্যটক এখানে এলে থাকার জন্য বাছাই করে এই রিসোর্টটিকেই। প্রতি ফেব্রুয়ারিতে এখানকার সাপোরো শহরটিতে অনুষ্ঠিত হয় মনোমুগ্ধকর তুষার উৎসব। এটি একইসাথে স্কি জাম্পিংয়ের বিশ্বকাপ খ্যাত এফ আই এস স্কি জাম্পিং ওয়ার্ল্ডকাপের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি স্পট।

সোচি, রাশিয়া

তুষার বিলাস; সূত্র: Russia Beyond

বিশ্ব অলিম্পিকের শীতকালীন আসরের ২০১৪ এর এবং ২০১২/১৩ এর এফ আই এস স্কি জাম্পিং ওয়ার্ল্ড-কাপের আয়োজক হিসেবে সোচি শহরটি প্রমাণ করেছে তুষারের সাথে এই শহরের সখ্য। শীত শুরু হওয়ার আগে আগে তুষারে ঢাকা ঢালগুলোতে মানুষজনের ভিড়ও তেমন থাকে না। পাহাড়ি ঢালগুলো নীরবতার সাথে মিলেমিশে একাকার হয়ে যায়।

অভিজ্ঞ স্কিয়ার এবং বোর্ডারদের নিজেদের ঝালিয়ে দেখবার ভালো জায়গা এটি। এখানে এসে স্কিয়িং করার পর আপনি চাইলে বলতেই পারেন যে অলিম্পিকের স্কি রিসোর্ট থেকে স্কিয়িং করে আসার অভিজ্ঞতা রয়েছে আপনার। অন্যান্যদের থেকে সমীহও পাবেন নিঃসন্দেহে। 

লেইখ, অস্ট্রিয়া

তুষারে ঢাকা যে শহর; সূত্র: skisolutions.com

এই গত শতাব্দীতেও ভারী তুষারপাতের কারণে এই এলাকাটি থাকতো পুরো পৃথিবী থেকে বিচ্ছিন্ন। কৃষিকাজের উপযোগী খুবই সামান্য একটি গ্রাম থেকে বর্তমানে এটি পৃথিবীর অন্যতম আধুনিক এবং খরুচে স্কি রিসোর্টের শহর হয়ে উঠেছে। এছাড়াও গড়ে উঠেছে আল্পাইন-কিসচ হোটেল, আধুনিক রেস্তোরাঁ, বার এবং ক্লাবের সমাহার। সন্ধ্যা থেকে সারা রাত জীবন্ত হয়ে ওঠে এই সবই।

যে তুষারপাতের কারণে শহরটি বিচ্ছিন্ন থাকত পুরো পৃথিবী থেকে, সেই তুষারপাতই এখন এই শহরটির জন্য শাপে বরে পরিণত হয়েছে। এখানকার স্কিয়িংয়ের জন্য বেশীরভাগ রাস্তাই পাহাড়ি গাছের সারি থেকে বেশ উঁচুতে থাকলেও কিছু কিছু ঢালু পথ রয়েছে যেগুলো বেশ বিপজ্জনক। কিন্তু আপনার এখানে আসতেই হবে যদি আপনি চেয়ার-লিফটে চড়ে তুষার ঢাকা শহরে ঘুরে বেড়াতে চান কিংবা সর্বাধুনিক হোটেল বারে উষ্ণতার ছোঁয়ায় চুমুক দিতে চান শ্যাম্পেনের গ্লাসে। এই শহর তাহলে নিশ্চিতভাবেই আপনাকে ডাকছে।

লাক্স, সুইজারল্যান্ড

নিশ্চিন্তে স্কিয়িং করুন লাক্সে; সূত্র: powderhounds

চারটি বিশাল স্নো-পার্কে ঘেরা লাক্সকে ডাকা হয় ফ্রি-স্টাইল স্কিয়িং এবং স্নো-বোর্ডিংয়ের স্বর্গ হিসেবে। স্কিয়িং-স্নো-বোর্ডিংয়ের জন্যে এখানে রয়েছে সর্ববৃহৎ বেজ। এছাড়াও রয়েছে ইউরোপের সবচেয়ে বড় স্কি পাইপ। আরও আছে একটি ইনডোর ‘ফ্রি-স্টাইল একাডেমি’, যার মাধ্যমে আপনি চাইলে তুষারের উপর স্নো-বোর্ডিং করার সময় জাম্প কিংবা কিকের চর্চা চালিয়ে যেতে পারেন। এতে করে সুবিধা হলো, মূল তুষার ঢাকা পথ বেয়ে চলার আগেই হাত-পা ঝালিয়ে নিয়ে আরাম করে এরকম পথের অভিজ্ঞতা আগেই পেয়ে যেতে পারেন। তাতে পরবর্তী বিপদ-আপদ সম্পর্কে আগাম সতর্ক হওয়া যায়।

এখানে অভিজ্ঞ স্কিয়াররা যেমন আসেন তাদের অভিজ্ঞতা ঝালিয়ে নিতে; নতুন নতুন ট্রিক্স চর্চা করতে, তেমনি অনেকে আসেন পুরো পরিবার-পরিজন নিয়ে। স্কিয়িংয়ে একেবারে নবীশদের জন্য এটি বলা যেতে পারে একটি বিশালাকার প্র্যাকটিক্যাল ক্লাসরুম। আর লাক্স হচ্ছে তাদের জন্য স্কিয়িং স্কুল। সব মিলিয়ে জায়গাটি সত্যিই এক স্নো ওয়ান্ডারল্যান্ড!

সেন্ত-ফয় তারেনতেইজ, ফ্রান্স

তুষারের মাঝে এক টুকরো প্রশান্তির আশ্রয়; সূত্র: OnTheSnow

সেন্ত-ফয়ের অবস্থান তারেনতেইজ উপত্যকার কোলে। ভাল দি আয়ের, টিনেস আর লা আর্কের মতো তুষাররাজ্য থেকে জায়গাটা খুব একটা দূরে নয়। আপনি যদি পাহাড়ের কোলে শুয়ে-বসে নিবিড় প্রশান্তিতে ডুবে থেকে, তুষার-ঢাকা পাহাড়ি পথ পছন্দ করেন তবে এই জায়গাটি আপনার জন্য প্রযোজ্য। আবার স্কিয়িং এবং স্নো-বোর্ডিং যারা শুরু করতে চাচ্ছেন, তাদের জন্যেও এই জায়গাটি হতে পারে সবচেয়ে সেরা।

ফিচার ইমেজ: Active Ukraine

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নিসর্গপ্রেমীদের খৈয়াছড়া ঝর্ণায় অ্যাডভেঞ্চার

সোলো ট্রাভেলিংয়ের পরিকল্পনা কীভাবে করবেন?