হাওরে বৃত্ত’র সাথে পূর্ণিমা স্নান!

এটি বৃত্ত-Britto Travel & Tourism এর একটি ইভেন্ট।

বাংলাদেশের বৃহত্তম জলমহল এবং ২য় রামসার সাইট হচ্ছে আমাদের এই টাঙ্গুয়ার। মেঘালয়ের কোল ঘেঁষে সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা ও তাহেরপুর উপজেলায় এটি অবস্থিত। মেঘালয়ের সুবিশাল ও বিস্তৃত পাহাড়ের হাজারো ছড়া ও বেশ কিছু ঝর্ণা হল টাঙ্গুয়ার হাওরের পানির উৎস। মেঘালয়ের খাসিয়া, জৈন্তা পাহাড়ের পাদদেশে সারি সারি হিজল-করচ শোভিত, পাখিদের কলকাকলি মুখরিত টাংগুয়ার হাওর মাছ, পাখি এবং অন্যান্য অনেক জলজ প্রাণীর এক বিশাল অভয়াশ্রম।

অনেকেই টাঙ্গুয়ার হাওরে যান কিন্তু জানেন না এর পাশেই কী মিস করছেন! রয়েছে যাদুকাটা নদী, বারিক্কা টিলা, শাহ আরেফিনের মাজারের পেছনের ঝরনা, লাকমাছড়া, টেকেরঘাট চুনাপাথরের পরিত্যক্ত খনির নীল পানির লাইমস্টোন লেক যা নীলাদ্রি বা শহীদ সিরাজ লেক নামেও পরিচিত!

খরচঃ মাত্র ৩,৫০০টাকা।

প্ল্যানঃ
১ম দিন (বৃহস্পতিবার) – রাতে নন-এসি বাসে করে সুনামগঞ্জের উদ্দেশ্যে যাত্রা।

২য় (শুক্রবার) – সকাল বেলা তাহিরপুর থেকে রিজার্ভ ট্রলারে করে হাওরে বেড়িয়ে পড়বো। বিকেল বেলাটা কাটাবো আমরা বারিক্কা টিলা এবং জাদুকাটা নদীতে গোসল করে, রাতের বেলা নৌকাগুলো হাওরের মাঝে নিরাপদ কোন স্থানে বেঁধে পূর্নিমা’র আলোয় এক পাশে মেঘালয় পাহাড়ের সারি আরেক পাশে বিস্তৃত হাওর রেখে গানের তালে তালে কাটিয়ে দিবো রাতটি ইনশাআল্লাহ। 

৩য় দিন (শনিবার) – লাকমাছড়া, লাইমস্টোন লেক ঘুরে সুনামগঞ্জ থেকে রাতের বাসে ঢাকা’র উদ্দেশ্যে রওয়ানা করবো।

৩০শে সেপ্টেম্বর (রবিবার) ভোর বেলা ঢাকা পৌঁছাবো ইনশাআল্লাহ।

যা যা পাচ্ছেনঃ
১। সকল ধরনের পরিবহন খরচঃ নন-এসি বাস, ট্রলার।
২। প্রতিদিন ৩ বেলা মূল খাবার-দাবার (যাবার পথের ডিনার অন্তর্ভুক্ত নয়) 
৩। ট্রলারে থাকা।

যা যা পাচ্ছেন নাঃ

যেকোন ধরনের ব্যক্তিগত খরচ

বিস্তারিতঃ
১। খাবার-দাবার কিন্তু সব ট্রলারেই রান্না করে খাওয়া হবে। কোন আয়েসী খাবারের সুযোগ নাই। আনুমানিক মেন্যুঃ খিচুড়ি, ডিম, ভাত, হাঁস, মুরগী, হাওরের তাজা মাছ, সবজি, ডাল। এর বেশি কেউ কিছু আশা করেন না প্লীজ! 
২। ট্রলারেই রাত কাটানো হবে। এখন পাহাড় আর হাওড়ের এইরকম মায়াবী পূর্নিমা রাতে কেউ যদি গান-বাজনা’র মধুর সঙ্গীতে ঘুমাইতে না পারেন তাহলে কিসসু করার নাই। তবে অবশ্যই ছেলে-মেয়ের নৌকায় থাকা আলাদা হবে। 
৩। টয়লেট – বুঝতেই পারছেন ট্রলারের ঘুপচি টয়লেটেই ২ দিনের প্রাকৃতিক ডাকে সাড়া দিতে হবে। এক্ষেত্রে যদি কারো শুচিবায়ু থেকে থাকে তাহলে টাঙ্গুয়ায় না যাওয়াই ভালো।

কনফার্ম করার নিয়মঃ
১৫ই সেপ্টেম্বর এর মধ্যে 01911-254397 পারসোনাল এই বিক্যাশ নম্বরে 2,040/- টাকা (খরচ সহ, যা অফেরতযোগ্য) পাঠিয়ে জানালেই আপনি কনফার্মড।

বিঃদ্রঃ
১। লাইফ জ্যাকেট নিবেন সাথে অবশ্যই।
২। ব্যাক-প্যাক হালকা নিবেন। জাস্ট ২দিনের জামা-কাপড়, গামছা, টুথব্রাশ-পেস্ট (নিত্য ব্যবহার্য টুকুটাকি)।
৩। ১টা চাদর নিবেন সাথে, বিছিয়ে শোয়ার জন্যে।
৪। ভ্রমনে এসে একটু কষ্ট সহ্য করে থাকার মত মন-মানসিকতা সম্পন্ন যারা আছেন, তারাই আমন্ত্রিত। আমরা সৌন্দর্য উপভোগ করতে যাচ্ছি, পোলাউ-রোস্ট খেতে নয়। তবে কথা দিচ্ছি, ঘুরে আসার পরে কোন কষ্টের কথা মনেই করতে পারবেন না ইনশাআল্লাহ।

Cafe Britto – ক্যাফে বৃত্ত
2nd Office : House-836, Road-2, (1st floor),
Baitul Aman Housing Society, Adabar Dhaka-1207.
Mobile: +88 01911 722 007, +88 01911 254397.

বৃত্ত-Britto Travel & Tourism
Office : House-316/1, Road-2, (Ground floor),
Baitul Aman Housing Society, Adabar Dhaka-1207.
Mobile: +88 01911 722 007, +88 01911 254397.
Email : [email protected]

Facebook Page : https://www.facebook.com/pg/BrittoTourism
Facebook Group : https://www.facebook.com/groups/BrittoTourism/

>>> যেকোন প্রয়োজনে যোগাযোগঃ
1. Dr. Mazharul Xion– 019117 22007,
2. Tawhidul Islam Shawon – 01911 254397.

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আশুরার ছুটিতে সিলেট ভ্রমণ

ভারতের হিমাচলের রহস্যময় গ্রাম মালানায় যাত্রা