অস্ট্রেলিয়ায় আমার প্রিয় ৯টি হোটেল

অস্ট্রেলিয়া আমার পছন্দের একটি দেশ। ভ্রমণের জন্য পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় এটি আমার কাছে অত্যধিক প্রিয়। এই দেশের প্রতি অধিক ভালোবাসা থাকার কারণে প্রায় এক দশক ধরে আমার যাওয়া-আসা চলছে। এই সময়কালে আমি অনেকবারই অস্ট্রেলিয়াতে গিয়েছি এবং অনেক হোটেলে অবকাশ যাপন করেছি। সেগুলোর মধ্যে থেকে আমার প্রিয় কিছু হোটেলের কথা আজ আপনাদের সাথে শেয়ার করতে চাই।

বেস সেন্ট কিলদা (মেলবোর্ন)

বেস সেন্ট কিলদা; Source: nomadicmatt.com

ম্যাক ডোনাল্ডের একটি অনন্য হোটেলের নাম বেস সেন্ট কিলদা। এখানে রয়েছে একটি আদর্শ হোটেলের সকল আয়োজন। হোটেলটি মূলত ম্যাক ডোনাল্ডেরই প্রতিনিধিত্ব করে। এটি আমার সর্বাপেক্ষা প্রিয় হোটেল।
এখানকার বারটি সপ্তাহে সাত দিন সহ প্রতিদিন সারা রাত খোলা থাকে এবং প্রতিদিন ৮-১০টার মধ্যে বিনামূল্যে সকালের নাস্তা দেয়। এছাড়াও এর কামরাগুলো অনেক সুন্দর ও পরিপাটি।
তারা গেস্টদের দৈনন্দিন কার্যক্রমের জন্য একটি ভ্রমণ ডেস্ক, নিয়োগ এবং জব ডেস্কের মাধ্যমে বিনামূল্যে রিমাইন্ডার দিয়ে থাকে। দিন শেষে সবাই যখন রাতের পার্টিতে একত্রিত হয় তখন তাঁরা একে অপরের সাথে বেশ বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করেন। তাই এখানে গিয়ে সময় কাটানোর জন্য আমার বন্ধুর অভাব হয়নি।
অস্ট্রেলিয়াতে যখন প্রথমবার গিয়েছিলাম, তখনই আমার এই সকল অভিজ্ঞতা হয়েছিল। এবার যখন আবার গিয়েছিলাম, তখন সেই অসাধারণ অনুভূতির পুনরাবৃত্তি আমাকে বিমোহিত করেছে। দেখে অবাক হতে হয়, এত বছরেও হোটেলটি তাঁর অসাধারণত্ব হারায়নি!

ওয়েক আপ! (সিডনি)

ওয়েক আপ!; Source: nomadicmatt.com

ব্যাকপ্যাকার হোটেল হিসেবে উপযুক্ত একটি হোটেলের নাম ‘ওয়েক আপ!’। এটি আট তলা বিশিষ্ট একটি আধুনিক মানের হোটেল। এখানকার পরিচ্ছন্ন পরিবেশ এবং ছোট কমন এরিয়া দেখে হয়তো আপনার মনে হতে পারে, এখানে মানুষের দেখা মেলা দুষ্কর। আসলে হোটেলের বিশালতার কারণেই এমন মনে হয়।
আপনি যদি সিঁড়ি বেয়ে সোজা নিচে চলে যান তবে দেখবেন বিশাল একটি বার। এই বারেই আপনি দেখতে পাবেন সব মানুষের সমাগম। কেউ আসছে আর কেউ যাচ্ছে, কিন্তু আমার ধারণা আপনি সহজে জায়গাটি ত্যাগ করতে চাইবেন না। কারণ আমরা তো বাঙালিরা মানুষের সঙ্গ পেলে অনেক আনন্দিত হই।
ওয়েক আপ! হোটেলে কাটানো দিনগুলো সত্যিই অনেক আনন্দময় ছিল। এখানকার অনেক স্মৃতিই আমার মনে পড়ে, সেই সাথে মনে পড়ে উচ্চ চাপের শাওয়ারে গোসল করার এক আলাদা অনুভূতির কথা।

সার্ফ এন্ড সান (সার্ফার’স প্যারাডাইস, গোল্ড কাস্ট)

সার্ফ এন্ড সান; Source: nomadicmatt.com

নামেই যেন স্বকীয় মহিমার বর্ণনা দেয় এই হোটেলটি। এই হোটেলের পরিবেশ দেখেই বোঝা যায়- এটি নির্মাণ করা হয়েছে পর্যটকদের রুচির দিকে খেয়াল রেখেই। সমুদ্র তটে অবস্থিত এই হোটেলের কর্মচারীদের ফ্রেন্ডলি ব্যবহার আপনাকে মুগ্ধ করবে। এছাড়াও আপনি পেয়ে যেতে পারেন হোটেল মালিকের সান্নিধ্যও। কারণ এই হোটেলের বৃদ্ধ মালিকও মাঝে মাঝে  গেস্টদের সাথে সময় কাটাতে আসেন।

বাঙ্ক ব্রিজবেন

বাঙ্ক ব্রিজবেন; Source: nomadicmatt.com

বাঙ্কে চমৎকার কিছু সুযোগ-সুবিধা রয়েছে; এর মধ্যে আছে একটি ওয়াটার পুল, হট ট্যাব, লেট নাইট বার ও একটি অসাধারণ ট্রাভেল ডেস্ক। তারা আপনাকে জব খুঁজতেও সাহায্য করবে। এছাড়াও এখানে রয়েছে প্রশস্ত রান্নাঘর, আরামদায়ক বিছানা এবং প্রতিদিন রুম পরিষ্কার করার ব্যবস্থা। এখানে আপনার নিরাপত্তার দিকে খেয়াল রেখে বানানো হয়েছে ইলেকট্রিক এক্সেস সিস্টেম। সব মিলিয়ে এটি ব্রিজবেনের সেরা জায়গা।

কিম্বারলে ট্রাভেলার্স লজ


এই লজটি আশ্চর্যজনক সৌন্দর্যের অধিকারী। এখানে রয়েছে একটি বিশাল পুল, একটি বিশাল বহিরাঙ্গন এলাকা, একটি রাক্ষুসে রান্নাঘর এবং খাবারের জন্য একটি আরামদায়ক বার। আমি মূলত হোটেলে রান্না করতে পছন্দ করি না, কারণ সেখানে রান্নাঘরগুলো অনেক ছোট হয়; জিনিস পত্র এদিক-ওদিক নাড়াচাড়া করতে গেলেও অস্বস্তি লাগে। কিন্তু এই কিম্বারলে ট্রাভেলার্স লজের রান্নাঘর সাধারণের থেকে অনেক বড়, তাই এখানে রান্না করতে আমার বেশ ভালোই লেগেছে।

উইচ হ্যাট

উইচ হ্যাট; Source: nomadicmatt.com

উইচ হ্যাট পার্থের নর্থব্রিজের কাছাকাছি অবস্থিত একটি হোটেল। এটি মূল পার্টি এলাকায় অবস্থিত হওয়ায় এর কাছাকাছি অনেক ভালো রেস্টুরেন্ট রয়েছে। এখানকার স্টাফরা খুবই বন্ধুত্বপূর্ণ এবং ভ্রমণ সম্পর্কিত তথ্য দিয়ে সাহায্য করে থাকেন। এখানে একটি চমৎকার রান্নাঘর সহ বেড রুম ও কমন রুম রয়েছে। আরো রয়েছে একটি বহিরাঙ্গন ও বারবিকিউ এলাকা। সব মিলিয়ে হোটেলটিতে সব সময়ই সামাজিক পরিবেশ বিরাজ করে।

অ্যাকুয়ারিয়াস ব্যাকপ্যাকার্স

আকুরিয়াস ব্যাকপ্যাকার্স; Source: nomadicmatt.com

আমি ক্রিসমাসের সময় অ্যাকুয়ারিয়াস ব্যাকপ্যাকার্সে থেকে এর প্রেমে পড়ে যাই। এই সময় তাঁরা একে অপরের সাথে কথা বলার জন্য ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করার জন্য দারুণ সব আয়োজন করে। তারা প্রতিদিন বিনামূল্যে রাতের খাবার খেতে দেয় এবং প্রতি রবিবারে বারবিকিউ লাঞ্চের আয়োজন করে।
অ্যাকুয়ারিয়াস ব্যাকপ্যাকার্স শহরের কেন্দ্রে অবস্থিত এবং এর ঠিক পাশেই রয়েছে বিচ। এর পুল এলাকায় ওয়াইফাই ফ্রি করা হয়েছে। হোটেলের বেড রুমটি প্রতিদিন পরিষ্কার করা হলেও, বেডের ব্যাপারে আলাদা করে কিছু বলার নেই।

গিলিগান্স ব্যাকপ্যাকার হোটেল এন্ড রিসোর্ট

গিলিগান্স; Source: nomadicmatt.com

আপনি যদি পার্টি করতে চান তবে আপনাকে যেতে হবে বিশাল এই হোটেলে। এখানকার রুমগুলো সুন্দর এবং বেডগুলো বেশ আরামদায়ক। তবে আমার কাছে এর থেকে বেশি ভালো লেগেছে রান্না ঘরের সৌন্দর্য, এয়ার পোর্ট থেকে ফ্রি পিক-আপের ব্যবস্থা, ওয়াইফাই এবং সুইমিং পুল। এগুলো ছাড়াও এখানে রয়েছে একটি উন্মুক্ত বার ও পাব। আমি এখানে অনেক আনন্দে কাটিয়েছি, যা ভুলে যাবার নয়।

নোমাদস নুসা

নোমাদস নুসা; Source: nomadicmatt.com

এটি অনেক শান্ত ও ছোট একটি হোটেল, যা বীচ থেকে মাত্র ৯০০ মিটার দূরে অবস্থিত। এখানকার রুমগুলো বেশ প্রশস্ত এবং অ্যাটাচ বাথরুম রয়েছে। হোটেলটিতে আরো রয়েছে একটি দৃষ্টিনন্দন বাগান, সাধারণ রান্নাঘর, বার, সুইমিং পুল এবং ভলিবল কোর্ট। আমি যত জায়গায় ছিলাম তাঁর মধ্যে এটি সব থেকে ভালো লেগেছে, কারণ এখানকার স্টাফরা অনেক বন্ধুত্বপূর্ণ এবং উপকারী।
আপনি যদি অস্ট্রেলিয়ায় যেতে চান তবে এই হোটেলগুলোর মধ্যে থেকে যে কোনো একটি হোটেল বুক নিতে পারেন। আমি মনে করি এই হোটেলগুলো আপনার জন্য উপযোগী হতে পারে। (অনুবাদ)
Feature Image: nomadicmatt.com

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নড়াইলের পথে: চিত্রা নদীর পাড়ে চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের ব্রিজে

অভাবনীয় সুন্দর আগ্রা দুর্গ থেকে অপূর্ব তাজ দর্শন