পেয়ারা বাজারের ভাসমান সবুজ স্বর্গরাজ্যে

বরিশাল, ঝালকাঠি ও পিরোজপুর জেলার বিস্তীর্ণ একটি অঞ্চল। পুরো অঞ্চল জুড়ে ছড়িয়ে আছে ছোট বড় অগণিত খাল। এ যেন খালের এক স্বর্গরাজ্য। খালের দু পাশে গড়ে উঠেছে হরেক রকম ফলের বাগান। পেয়ারা, আমড়াসহ বিভিন্ন রকমের ফলের উৎপাদন হয় এসব বাগানে। এসব ফল উৎপাদন ও বিক্রি করে চলে ঐ অঞ্চলের অধিকাংশ মানুষের জীবিকা নির্বাহ। নানারকম ফলের চাষ হলেও এ অঞ্চল পেয়ারার ফলনের জন্য বিখ্যাত। বাংলাদেশের অধিকাংশ পেয়ারার যোগান আসে এ অঞ্চলের উৎপাদিত পেয়ারা থেকে। পেয়ারার মৌসুমে চাষীরা বাগান থেকে পেয়ারা সংগ্রহ করে ছোট ছোট নৌকায় বোঝাই করে নিয়ে যান আটঘর, কুড়িয়ানা ও ভিমরুলির ভাসমান বাজারগুলোতে। পেয়ারা কেনার জন্য বড় ইঞ্জিনবোট নিয়ে দূর দূরান্ত থেকে আসেন পাইকারি ব্যবসায়ীরা। নৌকা বা মণ হিসেবে তারা পেয়ারা কিনে নিয়ে যান। অতঃপর ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে তা চালান হয়।
শত বছরের পুরোনো এই ভাসমান বাজার বসে সারা বছর জুড়েই। কিন্তু পেয়ারার মৌসুমে জুলাই থেকে আগস্ট পর্যন্ত সবচেয়ে ব্যস্ত থাকে এই বাজার। চাষীদের কর্মব্যস্ততা, খাল জুড়ে ছোট, বড় অগণিত পেয়ারা বোঝাই নৌকার ভিড়, ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সমাগম – সব মিলিয়ে ভাসমান বাজারগুলো এ সময় প্রাণ ফিরে পায়। আর সাথে বৃষ্টি হলে তো কথাই নেই।
এ যেন সবুজে ঘেরা ভাসমান এক টুকরো স্বর্গরাজ্য !
বৃষ্টির ছোঁয়ায় এখানকার চারপাশের সবুজ প্রকৃতি হয়ে ওঠে আরও সবুজ।
প্রতিটি মুহূর্ত হয় চরম উপভোগ্য। প্রতিটি ব্যক্তি, প্রতিটি বস্তু যেন হয়ে যায় ছবি তোলার সাবজেক্ট। এ সময় ধারণ করা প্রতিটি ছবিই যেন হয়ে ওঠে জীবন্ত !
সবুজে ঘেরা সেই ভাসমান স্বর্গরাজ্যে ভেসে বেড়াতে My Step Out আগামী ০২/০৮/২০১৮ তারিখে যাচ্ছে স্বরুপকাঠির বিখ্যাত ভাসমান বাজারে।
ইভেন্ট বিস্তারিত
– ০২ আগস্ট (বৃহস্পতিবার): ঢাকার সদরঘাট থেকে রাতের লঞ্চে করে বরিশাল/হুলারহাট এর উদ্দেশ্যে যাত্রা।
(উল্লেখ্য যে, আমরা লঞ্চের ডেকের টিকেটে যাবো। কেউ কেবিন নিতে চাইলে আমরা যথাসময় লঞ্চের নাম জানিয়ে দিলে আগে থেকে নিজ দায়িত্বে কেবিন বুকিং করে নিবেন। কেবিন ব্যবস্থাপনার কোন দায় দায়িত্ব এবং খরচ ইভেন্ট কর্তৃপক্ষের উপর বর্তাবে না)
– ০৩ আগস্ট (শুক্রবার): সকালে লঞ্চঘাটে নেমে চলে যাবো ভাসমান বাজারে। ট্রলার নিয়ে সারাদিন ভেসে বেড়াবো ভিমরুলি, আটঘর, কুড়িয়ানার ভাসমান বাজারগুলোতে। বিকেলের মধ্যে ফিরে আসব বরিশাল শহরে। সময় করে আসার পথে দেখে নিবো বিখ্যাত গুঠিয়া মসজিদ ও দুর্গাসাগর দীঘি। তারপর রাতের লঞ্চে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা।
– ০৪ আগস্ট (শনিবার): সকালে ঢাকায় পৌঁছানো।
টিম সাইজঃ ২০ জন (সর্বনিম্ন)
ইভেন্ট ফিঃ ১,৯০০ টাকা (জনপ্রতি)
বুকিং ফি হিসেবে আগামী ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে ১,০০০ টাকা জমা দিতে হবে।
ইভেন্ট ফি/বুকিং ফি জমা দেয়ার নিয়ম
ব্যাংকঃ
AC Name : MD AZIZUR RAHMAN (SHAZU)
AC Number : 06334001625
Bank Asia Limited
Elephant Road Branch
বিকাশ: 01812155050
ইভেন্ট ফি/বুকিং ফি জমা করে আমাদেরকে জানালে আমরা ইভেন্ট পেজে ‘কনফার্ম লিস্ট’ আপডেটের মাধ্যমে জানিয়ে দিব।
উক্ত নাম্বারগুলোর যেকোন একটিতে বিকাশ করে Transaction ID সহ আমাদেরকে জানাতে হবে।
কেউ চাইলে ইভেন্ট হোস্টদের হাতেও ইভেন্ট ফি/বুকিং ফি জমা দিতে পারেন।
বিকাশে পাঠালে ইভেন্ট ফি= ১,৯৪০/- ও বুকিং ফি= ১,০২০/-
ইভেন্ট ফি এর অন্তর্ভুক্ত যা যা থাকছেঃ

  1.  লঞ্চের ডেকে যাওয়া আসা
  2.  সকল প্রকার লোকাল ট্রান্সপোর্ট
  3.  ৪ বেলা মূল খাবার (২ টি ডিনার, ১ টি লাঞ্চ, ১ টি ব্রেকফাস্ট)

ইভেন্ট ফি এর অন্তর্ভুক্ত যা থাকছে নাঃ ব্যক্তিগত যেকোন প্রকার খরচ
যা যা নিতে হবে

  1. লাইফ জ্যাকেট (Mandatory)
  2.  রেইনকোট, ছাতা, জিপলক ব্যাগ বা প্লাস্টিকের ব্যাগ। সর্বোপরি বৃষ্টি থেকে নিজেকে ও সঙ্গে থাকা মূল্যবান সামগ্রী বাঁচানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা।
  3. ক্যামেরা
  4.  লঞ্চের ডেকে শোয়ার জন্য চাদর
  5. অতিরিক্ত এক/দুই সেট জামা, গামছা

ইভেন্টে অংশগ্রহণের জন্য করণীয় বিষয়সমূহ

  1.  ইভেন্টে অংশগ্রহণ করার পূর্বে ইভেন্ট ডেসক্রিপশন আগাগোড়া ভালোভাবে পড়ে নেয়া বাঞ্ছনীয়।
  2.  ইভেন্ট চলাকালীন সময়ে যেকোন প্রকার সমস্যা তৎক্ষণাৎ ইভেন্ট পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিকে জানাতে হবে। পরবর্তীতে কোন প্রকার আপত্তি গ্রহণযোগ্য নয়।
  3.  পরিস্থিতি বিবেচনায় ইভেন্টের জন্য পূর্বনির্ধারিত যেকোন পরিকল্পনার পরিমার্জন, পরিবর্ধন করার প্রয়োজন হলে অংশগ্রহণকারী সকলের সাথে আলোচনা করে ইভেন্ট হোস্ট সিদ্ধান্ত নিবেন।
  4.  প্রকৃতি ও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকতে হবে।
  5.  স্থানীয় অধিবাসীদের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে।
  6.  ইভেন্ট চলাকালীন সময়ে মাদকদ্রব্য বহন ও সেবন নিষিদ্ধ। এ ব্যাপারে কোন অভিযোগ পাওয়া গেলে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
  7.  কোন প্রকার অশ্লীল ও অসামাজিক কার্যকলাপ গ্রহণযোগ্য নয়। এ ব্যাপারে অভিযোগ পাওয়া মাত্র অভিযুক্তের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
  8.  যেকোন প্রকার প্রাকৃতিক দুর্ঘটনার দায় My Step Out ও এর সাথে জড়িত কারো উপর বর্তাবে না। ইভেন্ট চলাকালীন সময়ে কোন প্রকার প্রাকৃতিক দুর্ঘটনার সম্মুখীন হলে তা থেকে নিরাপদ থাকার জন্য সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।

বিঃদ্রঃ ইহা একটি লাভজনক ইভেন্ট। আপনার অর্থের বিনিময়ে যথাযথ সার্ভিস প্রদানের মাধ্যমে My Step Out আপনার ভ্রমণকালীন সময়গুলোকে উপভোগ্য, প্রাণবন্ত ও স্মৃতিময় করে তুলতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এ ব্যাপারে অংশগ্রহণকারী সকলের সর্বাত্মক সহযোগীতা কামনা করছি।
My Step Out এর সাথে আপনার ভ্রমণকালীন মুহূর্তগুলো সুন্দর হোক।
যোগাযোগের মাধ্যমঃ
My Step Out, 01682018401, 01812155050
My Step Out এর কার্যক্রম ও পরবর্তী ইভেন্ট সম্পর্কে জানতে চাইলে পেজে লাইক দিয়ে অথবা গ্রুপে জয়েন করে অনুসরণ করতে পারেন।
গ্রুপ লিংকঃ https://www.facebook.com/groups/mystepout/
পেজ লিংকঃ https://www.facebook.com/mystepout/
ফিচার ইমেজঃ Alaul Asif

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

মিরিকের মায়াবী মেঘের পানে

সপ্তদশ শতকের ঢাকার কেন্দ্রীয় মসজিদ চকবাজার শাহী মসজিদ