পৃথিবী ঘুরুন ভ্রমণের উপার্জনে

জানেন কি? নিজ অর্থায়নেই আপনি সুদীর্ঘ বিশ্ব ভ্রমণে বের হতে পারেন। ভাবছেন টাকা কোথা থেকে আসবে। খরচ জোগাতে পারবেন ভ্রমণরত অবস্থাতেই। বরং উপরি সঞ্চয়ও হবে। আমরা যখন সীমিত বাজেটে ভ্রমণ করি তখন ঘোরাঘুরি থেকে অর্থ উপার্জনের অদ্ভুত চিন্তায় ডুবে যাই। এই ভাবনা আসলে অদ্ভুত নয়, খুবই সাধারণ। কেননা ইন্টারনেট ও উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার আধুনিক সময়ে ভ্রমণরত অবস্থাতেই অর্থ উপার্জন সম্ভব এবং খুবই স্বাভাবিক। এর জন্যে প্রয়োজন শুধু দক্ষতা ও সময়ের। আর এই সময়ে উপার্জিত অর্থ আপনার ভ্রমণ ও অভিজ্ঞতাকে দীর্ঘায়িত করবে। একটা সময় নিজ অর্থায়নেই আপনি যত দিন ইচ্ছা ঘুরতে পারবেন, চলে যেতে পারবেন ভালো লাগার যে কোনো গন্তব্যে। এখানে ভ্রমণের সময় অর্থ উপার্জনের কয়েকটি উপায় সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

১. ট্রাভেল ওয়েবসাইটে লিখুন

ট্রাভেল ওয়েবসাইটের জন্য লিখে আপনি খুব দ্রুত অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এতে আপনার জীবিকা আয় তো হবেই সঙ্গে লেখার অভ্যাস ও ভ্রমণরত স্থান সম্পর্কে ধারণা স্পষ্ট হবে। লিখতে পারেন বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষাতেই। এখন বাংলাদেশেও ভ্রমণসহ বিভিন্ন বিষয় নির্ভর প্রতিবেদন নানা ধরনের ওয়েবসাইটে লিখে অর্থ উপার্জনের ব্যবস্থা চালু হয়েছে। আপনি ওই সকল ওয়েবসাইটে ই-মেইল ও টেলিফোনে যোগাযোগ করেই লেখালেখি শুরু করতে পারেন। তবে ইংরেজি ওয়েবসাইটে লিখে বেশ মোটা অংকের অর্থ উপার্জন সম্ভব। যেমন Boots n All এবং Matador Network এ লিখে প্রতিবেদন প্রতি ২৫ থেকে ৫০ মার্কিন ডলার আয় করা সম্ভব। লেখার মান ও শব্দ সংখ্যার ভিত্তিতে এই অর্থ নির্ধারণ করা হয়।

ট্রাভেল ওয়েবসাইটে লিখুন, ছবি সূত্রঃ Southern Cross

২. ট্রাভেল ফটোগ্রাফি ও ভিডিওগ্রাফি

ফটোগ্রাফি কিংবা ভিডিওগ্রাফি যদি আপনার বিষয় হয় তবে বিশ্ব ঘুরে চিত্র ধারণের স্বপ্ন থাকাটা স্বাভাবিক। আর তাই আপনারই অপেক্ষায় রয়েছে অনেক কোম্পানি, ওয়েবসাইট এমনকি অনেক ব্যক্তি। বিয়ে, অন্যান্য পর্যটক, আপনার গন্তব্যে যাওয়ার পথে যে সকল প্রতিষ্ঠান পড়বে তাদের জন্য আপনি কাজ করতে পারেন। আপনি যদি বিপণনে দক্ষ হন এবং ক্লায়েন্টদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন তবে ভিডিওগ্রাফি থেকেও মোটা অংকের আয় করতে পারবেন। এছাড়া বিভিন্ন স্টক ওয়েবসাইটে ভিডিও ও স্থির চিত্র আপলোড করতে পারেন। সেখানে থেকে আপনার কনটেন্টের ডাউনলোড প্রতি আপনি অর্থ পাবেন।

ফটোগ্রাফি ও ভিডিওগ্রাফি, ছবি সূত্রঃ theblondeabroad.com

৩. ইংরেজি পড়ান

ইংরেজিতে দক্ষ হলে ভ্রমণের সময় আপনার বড় অংকের অর্থ উপার্জনের সম্ভাবনা রয়েছে। পৃথিবীর নন ইংলিশ স্পিঙ্কিং কান্ট্রি বিশেষত এশিয়াতে ইংরেজির শিক্ষকদের জন্য মোটা অংকের বেতনের ব্যবস্থা রয়েছে। শুরুর জন্য বিভিন্ন অনলাইন ওয়েব সাইটের সঙ্গে যুক্ত হতে পারেন। যেমন PremierTEFL এর সঙ্গেও যুক্ত হতে পারেন। এই উপায়ে অর্থ উপার্জনের সুবিধা হলো অভিজ্ঞতা অর্জন করলে শিক্ষকতাকে ভবিষ্যতে পেশা হিসেবে গ্রহণ করা যাবে। এছাড়া শিক্ষক হিসেবে খণ্ডকালীন ও পূর্ণকালীন কাজের সুযোগ তো রয়েছেই। এমনকি ইংরেজিতে কথা বলা শিখিয়েও অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

ইংরেজি পড়ান, ছবি সূত্রঃ understood.org

৪. নিজের দক্ষতা কাজে লাগান

অনেকেই নিজের দক্ষতা কাজে লাগাতে ভুলে যান। অনেক পর্যটকই তাদের দীর্ঘদিনের সঞ্চিত অর্থ ভ্রমণের জন্য ব্যয় করেন। কারণ তারা জানেন না যে ভ্রমণের সময়েই নিজেদের দক্ষতা কাজে লাগিয়ে তারা ঘোরাঘুরির খরচ যোগাতে পারেন। হেয়ার স্টাইলিং, ম্যাসাজ, সার্ফিং, ড্রাইভিং, যোগ ব্যায়াম, রান্না, কাস্টমার সার্ভিস এবং অন্য অনেক কাজ করেই ভ্রমণের সময় অর্থ উপার্জন সম্ভব। আপনাকে নিজের দক্ষতা, যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার উপর বিশ্বাস রেখে কাজের জন্য এগিয়ে যেতে হবে।

দক্ষতা কাজে লাগান, ছবি সূত্রঃ theblondeabroad.com

৫. নিজের ট্রাভেল ব্লগ শুরু করুন

পর্যাপ্ত সময় ও শ্রম দিয়ে নিজের ট্রাভেল ব্লগ থেকেই উপার্জন করতে পারেন। অন্য ওয়েবসাইটের জন্য প্রতিবেদন তৈরি, ভিডিও সম্পাদনা, আলোকচিত্র গ্রহণ এই সকল কাজ নিজের ব্লগের জন্যও করতে পারেন। তবে নিজের ওয়েবসাইট চালু ও জনপ্রিয় করার জন্য বড় বিনিয়োগ প্রয়োজন হয়। কিন্তু আপনি যদি দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ এবং পাঠকদের আকৃষ্ট করতে সমর্থ হন তবে উপার্জন করতে পারবেন। অনেক সফল ওয়েবসাইটই প্রতি মাসে বিজ্ঞাপন, স্পনসর্ড কনটেন্ট, অনলাইন সেলসের মাধ্যমে মাসে কমপক্ষে এক হাজার মার্কিন ডলার আয় করে থাকে।

নিজের ট্রাভেল ব্লগ শুরু করুন, ছবি সূত্রঃ polkadotpassport.com/

৬. ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখুন

যদি ওয়েব ডেভেলপার হয়ে থাকেন তবে ভ্রমণের সময় আপনার অর্থ উপার্জনের অনেক বেশি সুযোগ রয়েছে। এখন ছোট বড় প্রায় সব কোম্পানিরই ওয়েবসাইট দরকার হয়। আর এদের বেশিরভাগই অনলাইনে ফ্রিল্যান্সারদের দিয়ে কাজ করাতে চায়। কেননা এতে কোম্পানির খরচ কমে যায়। আর তাই ভ্রমণের সময় ওয়েব ডেভেলপিংয়ের মাধ্যমে উপার্জন করতে পারেন।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করুন, ছবি সূত্রঃ theblondeabroad.com

৭. গ্রাফিক ডিজাইনার

বিভিন্ন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান ও ব্র্যান্ডের সব সময়ই লোগো, ওয়েব ডিজাইন এবং অন্যান্য ডিজাইনের উপাদান প্রয়োজন পড়ে। আপনি যদি গ্রাফিক ডিজাইনার হয়ে থাকেন কিংবা গ্রাফিক ডিজাইনের স্কিল থাকে তবে বিশ্বের যে কোনো স্থানে ভ্রমণের সময় অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

গ্রাফিক ডিজাইন করুন, ছবি সূত্রঃ http://4sv.vn

আসলে সব থেকে বড় কথা হলো আপনার জন্য কোন কাজটি সুবিধাজনক এবং কী করতে আপনি স্বাছন্দ্যবোধ করেন তা জানা। আপনি হয়তো সারা দিন কম্পিউটারের মনিটরের সামনে বসে থাকতে পছন্দ করেন কিংবা কায়িক শ্রমেই আপনার স্বাছন্দ্য। প্রযুক্তির কল্যাণে এখন বিশ্বের যে কোনো স্থান থেকেই কাজ করা যায়। তাই ভ্রমণের সময় উপরের যে কোনো কাজই করতে পারবেন। যদি পানিতে থাকতে পছন্দ করেন লাইফগার্ড হিসেবে কাজ করুন। জাহাজ পছন্দ করলে সেখানে কাজ নিন। যদি পার্টি পছন্দ করেন বারটেন্ডারের চাকরি নিতে পারেন। আর যদি শিশুদের আপনার পছন্দ হয় তবে টিউটর হন।

আপনি ভ্রমণের সময় অর্থ সংকটে পড়লে কাজ করবেন, না আপনার ফান্ডে অর্থ যোগ করতে কাজ করবেন তা আপনাকে বুঝতে হবে। নিজেকে প্রশ্ন করুন, নিজেকে জানুন। আপনি নিজের উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানতে পারলে ভ্রমণের সময় কী ধরনের কাজ করবেন তা নির্ধারণ করতে সহজ হবে। অর্থ উপার্জনের জন্য যে ওয়েবসাইট ব্যবহার করবেন তা সম্পর্কে আগে নিশ্চিত হন। অনেক ভুয়া ওয়েবসাইটও রয়েছে যা আপনাকে ধোঁকা দিতে পারে। এটা ঠিক যে সবার জন্য অনলাইনে অর্থ উপার্জন সহজ নয়। মূলত আপনার আগ্রহ, প্রতিভা এবং ক্ষমতাই নির্ধারণ করবে আপনার ভ্রমণকালীন আয়ের উৎস।

ফিচার ইমেজ- outoftownblog.com

Loading...

5 Comments

Leave a Reply
  1. দারুণ এবং গোছানো লেখা। ভালো লাগল পড়ে। আমি ভ্রমণ পিপাসু মানুষ তাই ভ্রমণ নিয়ে আমার ছোট একটা ব্লগ ( http://www.goarif.com ) সাইটে লিখার চেষ্টা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ট্রেকিং নিয়ে যত বিখ্যাত চলচ্চিত্র

বান্দরবানের স্বপ্নকথন: সূর্যোদয়ে নীলগিরি, চিম্বুক পাহাড় ও শৈল প্রপাত