বান্দরবানে ফ্যামিলি ট্রিপ

ইট কাঠের জঞ্জাল থেকে দূরে কোথাও বেড়িয়ে এসে একঘেয়েমি জীবনটাকে একটু দূরে সরিয়ে দিতে আমাদের এবারের আয়োজন বান্দরবানে ফ্যামিলি ট্রীপ এর। বর্ষার আগমনে বান্দরবান তার রুপের পসরা সাজিয়ে বসবে। মেঘের আনাগোনা থাকবে চারিদিক। মাঝে মাঝে মেঘ এসে ঢেকে দিবে আপনার চারপাশ!

এমন সব মনকাড়া দৃশ্য আর সুন্দর সুন্দর পর্যটন স্পট ঘুরে দেখবো আমরা। পাহাড়ি রাস্তার আকাবাকা বাক আর বিশাল সব পাহাড়রাজি আপনাকে বিস্ময় উপহার দেবে। পরিবার নিয়ে ছোট্ট একটা ছুটি কাটিয়ে আসতে পারেন আমাদের সাথে।

ইভেন্ট ফি : ৪,৭০০ টাকা জনপ্রতি 

৪ বছর পর্যন্ত শিশুদের ক্ষেত্রে ইভেন্ট ফি থাকছে না। গাড়ির আসন, ফুড এবং বেড বাবা-মা’র সাথে শেয়ার করে থাকবে। তবে কেউ যদি ঢাকা থেকে আসা যাওয়ার সময় আলাদা আসন নিতে চান এবং আলাদা খাবারের ব্যবস্থা করতে চান সে ক্ষেত্রে ২,০০০ টাকা অতিরিক্ত প্রদান করতে হবে এবং কনফার্ম করার সময় জানিয়ে দিতে হবে।

৪ বছর এর উপর যে কারো ক্ষেত্রে পূর্ণ ইভেন্ট ফি প্রযোজ্য।

কাপলরা আলাদা রুম নিতে চাইলে অতিরিক্ত ৫০০ টাকা করে প্রদান করতে হবে।

ভ্রমন সময়কাল : তিন রাত দুই দিন

আনুমানিক ভ্রমণ প্ল্যান :

২৭ই সেপ্টেম্বর রাতে রওণা দিয়ে পরদিন সকালে পৌঁছে যাবো বান্দরবান শহরে। শহরে পৌঁছে আমরা হোটেলে চেক ইন করবো। ফ্রেশ হয়ে নাসতা করে তারপর রিজার্ভ চান্দের গাড়ি করে আমরা বের হবো স্বর্ণ মন্দির এর উদ্দ্যেশে। সেখান থেকে আমরা চলে যাবো রামজাদি মন্দির। মন্দির ঘুরে আমরা আবার শহরে ফিরে আসবো। দুপুরে খাবার খেয়ে তারপর আবার আমরা বেরিয়ে পড়বো। এবার চলে যাবো প্রান্তিক লেক। কিছুটা সময় এখানে কাটিয়ে নীলাচলে সন্ধ্যার সময়টুকু কাটাবো। এরপর হোটেলে ফিরে আসবো।

পরদিন খুব ভোরে আমরা রওনা দিবো নীলগিরি এর উদ্দেশ্যে মেঘের সমুদ্র দেখতে। ফেরার পথে একে একে দেখে নেবো চিম্বুক, শৈলপ্রপাত। ঘুরে এসে লাঞ্চ করে চলে যাবো মেঘলা পর্যটন কমপ্লেক্স। সেখানে ঘুরাঘুরি শেষ করে আমরা সন্ধ্যায় হোটেলে ফিরে আসবো। আমরা একটা রুম রেখে দেবো সবার ফ্রেশ হবার জন্য। সেই রুমে একে একে সবাই ফ্রেশ হয়ে ডিনার সেরে ঢাকার উদ্দ্যেশে রওনা করবো। ৩০ সেপ্টেম্বর ভোরে ঢাকা থাকবো ইনশাল্লাহ।

প্রয়োজনে ভ্রমণ প্ল্যানে যে কোনো পরিবর্তন হতে পারে।

এই ফি তে যা যা থাকছে :

  • ঢাকা টু ঢাকা নন এসি বাসে যাওয়া আসার খরচ
  • সকল ধরনের লোকাল ট্রান্সপোর্ট খরচ
  • রিজার্ভ চান্দের গাড়ি খরচ
  • সকল প্রকার স্পট এন্ট্রি ফি
  • শেয়ার বেসিস থাকা খরচ
  • তিনবেলা মুল খাবার খরচ

হাইওয়ে নাশতা এবং যে কোনো ব্যক্তিগত খরচ এই ইভেন্ট ফির অন্তর্ভূক্ত নয়।

আমরা যা যা দেখবো :

  • নীলগিরি
  • নীলাচল
  • শৈলপ্রপাত
  • চিম্বুক
  • স্বর্ণমন্দির
  • রামজাদি মন্দির
  • প্রান্তিক লেক [ সম্ভব হলে ]
  • মেঘলা পর্যটন কমপ্লেক্স

কনফার্মেশনের শেষ সময় ২০ সেপ্টেম্বর। কনফার্মেশনের জন্য ২০৪০ টাকা [ অফেরতযোগ্য ] আমাদের কাছে বিকাশ করতে পারেন অথবা দেখা করে হাতে হাতেও টাকা জমা দিতে পারেন। বিকাশ এবং বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করতে পারেন ০১৬২৫১১৪০২০, ০১৯১১২৭১৯০৭।

ট্রিপে যা করনীয়

  • ভ্রমণের জন্য উপযোগী পোশাক পরতে হবে।
  • কারো সাথে কোনো ধরণের খারাপ ব্যবহার করা যাবে না। 
  • যে কোনো ধরণের অসুবিধায় এডমিনদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। 
  • সময়ের দিকে খেয়াল রেখে ঘোরাফেরা করতে হবে।
  • অযথা সময় ক্ষেপন করা যাবেনা।
  • অযথা হৈ চৈ করে অন্যকে বিরক্ত করা যাবেনা।
  • যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলা যাবেনা। 
  • সাথে রেইন কোট বা ছাতা রাখতে পারেন।
  • ব্যাগের ভেতরে প্রয়োজনীয় জিনিস পলি করে রাখতে পারেন। 
  • খাবার দাবার এর সময় এদিক সেদিক হতে পারে, এটা নিয়ে কোনো উজর আপত্তি করা যাবেনা।
  • যে কোনো কাজে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। 
  • সহনশীল মনোভাব দেখাতে হবে। 
  • কোনো ধরনের মাদক বা নিষিদ্ধ কোনো বস্থু বহণ করা যাবে না।
  • ভোটার আইডি কার্ড অথবা যে কোনো ফটো আইডি এর মূল কপি অবশ্যই সাথে রাখতে হবে। 
  • আপনি যদি যে কোনো ব্যাপারে খুঁতখুঁত বা অভিযোগ প্রবণ হন তাহলে এই ট্রীপ আপনার জন্য নয়।
Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

মিশন দামতুয়া সাথে মারায়ংতং ক্যাম্পিং

এক ট্রিপে খৈয়াছড়া , গুলিয়াখালি বিচ এবং মহামায়ায় কায়াকিং