ঈদের ছুটিতে টাঙ্গুয়ারে হাওর বিলাস

বাংলাদেশের বৃহত্তর সিলেটের সুনামগঞ্জ জেলায় অবস্থিত একটি হাওর টাঙ্গুয়ার। প্রায় ১০০ বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে বিস্তৃত এ হাওর বাংলাদেশর দ্বিতীয় বৃহত্তম মিঠা পানির জলাভূমি । স্থানীয় লোকজনের কাছে হাওরটি নয়কুড়ি কান্দার ছয়কুড়ি বিল নামেও পরিচিত। এটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় রামসার স্থান, প্রথমটি সুন্দরবন।

টাঙ্গুয়ার হাওর হচ্ছে এমনি একটি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জায়গা, যা না দেখলে আপনি বিশ্বাসই করতে পারবেন না যে কত রকমের সৌন্দর্য লুকিয়ে আছে সেখানে। দিগন্ত বিস্তৃত বিশাল হাওর, বিশাল জলরাশি, কিন্তু তা নদী বা সমুদ্রের মতো নয়, অন্য রকমের এক সৌন্দর্য। ঝাঁকে ঝাঁকে পাখির বিচরণ, আকাশে ওড়াউড়ি, কিচির-মিচির শব্দ, টলটলে স্বচ্ছ পানিতে মাছের দৌড়ঝাঁপ, সাজানো শ্যাওলা যেন সাগর তলার বাগান। কেউ যদি এই কর্মব্যস্ত জীবনে কয়েক দিনের জন্য রুটিন থেকে বেরিয়ে আসতে চান, একটু মুক্ত বাতাস, দিগন্ত বিস্তৃত আকাশ, চলুন বাংলার অভিযাত্রী গ্রুপের সাথে আর মনের চোখ দিয়ে দেখে আসুন এত সুন্দর হাওর।

আনুমানিক ট্যুর প্লান
২৩ আগস্ট – ঢাকা থেকে রাত ১০টায় যাত্রা শুরু।

২৪ আগস্ট – সুনামগঞ্জ থেকে সিএনজি/লেগুনা দিয়ে তাহেরপুর নাস্তা করে রিজার্ভ ট্রলার নিয়ে টাংগুয়ার হাওরে ঘুরে পানিতে ঝাপাঝাপি করে ওয়াচ টাওয়ার এর কাছে আমাদের হাওর বিলাস কোটেজে রাত্রিযাপন।

২৫ আগস্ট – সকালে ঘুম থেকে উঠে সারাদিন ঘোরাঘুরি করে মেঘালয় পাহাড়ের সারির আরেক পাশে বারিক্কা টিলা — শিমুল বাগান– এবং যাদুকাটা নদী ঘুরে সুনামগঞ্জ রাতে খাবার সেরে ঢাকা’র উদ্দেশ্যে রওয়ানা করবো।

২৬ আগস্ট – সকাল ৭ টায় ঢাকা পৌছাবো ইনশাআল্লাহ।

লাইফ জ্যাকেট নিবেন সাথে, অবশ্যই নিতে হবে।

ভ্রমণ খরচ: যারা ট্রলারে রাত্রি যাপন করবেন জন প্রতি ৩,৭০০ টাকা, যারা কটেজে রাত্রি যাপন করবেন জন প্রতি খরচ ৪,২০০ টাকা।

যা যা পাচ্ছেনঃ
ঢাকা-সুনামগঞ্জ-ঢাকা সমস্ত পরিবহন খরচ, কটেজে ১ রাত থাকা,
২৪ আগস্ট সকালের নাস্তা থেকে ২৫ আগস্ট রাতের খাবার। মানে ২ দিনে ৬ বেলা মূল খাবার।

ভ্রমনের স্থানঃ
১. টাঙ্গুয়ার হাওর
২. শুক্করটিলা
৩. বারিক্কা টিলা
৪. যাদুকাটা নদী
৫. টেকেরঘাট
৬. লাউরের গড়
৭. লাইমস্টন লেক/নিলাদ্রী
৮. শিমুল ফুলের বাগান।

কনফার্ম করার জন্য ২,০৪০ টাকা বিকাশ করতে হবে।
বিকাশ করে অবশ্যই ফোন করে জানাতে হবে বা ইভেন্ট পোষ্ট এ জানাতে হবে।
বিকাশ নাম্বার :
Sahyed Rubel : 01911249470
01873249470

কেউ যদি হাতে হাতে টাকা দিতে চান তা হলে এডমিনের সাথে দেখা করে ২০০০ টাকা দিয়ে কনফার্ম করতে পারবেন।

অফিস ঠিকানা — এফ ৯/৮ প্রগতি শরণী মেরুল বাড্ডা ৪র্থ তলা ,
ঢাকা ১২০৪।

বিশেষভাবে লক্ষনীয়
১- একটি ভ্রমন পিপাসু মন থাকতে হবে।
২- ভ্রমনকালীন যে কোন সমস্যা নিজেরা আলোচনা করে সমাধান করতে হবে।
৩- ভ্রমন সুন্দমত পরিচালনা করার জন্য সবাই আমাদেরকে সর্বাত্মক সহায়তা করবেন আশা রাখি।
৪- আমরা শালীনতার মধ্য থেকে সর্বোচ্চ আনন্দ উপভোগ করব।
৫-অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে যে কোন সময় সিদ্ধান্ত বদলাতে পারে, যেটা আমরা সকলে মিলেই ঠিক করব।
৬- বাংলার অভিযাত্রী ইকো টুরিজম এ বিশ্বাসী, টুরে যেয়ে প্রকৃতির কোন রকম ক্ষতি আমরা করবনা। কোন অপচনশীল বর্জ্য যেমন প্লাস্টিক প্যাকেট, বোতল যেখানে সেখানে না ফেলে নির্দিষ্ট স্থানে ফেলব ও ক্ষেত্রবিশেষে সাথে করে নিয়ে আসব। স্থানীয় জনবসতির সাথে বন্ধুত্বপূণ আচরন করব এবং যথোপযুক্ত সস্মান প্রদর্শন করব।
৭- কোন প্রকার মাদক দ্রব্য বহন বা সেবন করা যাবে না।

আমরা সবাই প্রকৃতি মায়ের সন্তান; এর হেফাজতের দায়িত্ব আমাদের সবার।

যোগাযোগ :
Sahyed Rubel : 01911249470
01873249470

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ঈদের ছুটিতে মেঘ রাজ্য সাজেক ভ্রমণ

ঈদের ছুটিতে বান্দরবানে ফ্যামিলি ট্রিপ