রাত্রিকালীন ফটোগ্রাফি এবং কিছু ধারণা

অনেকের কাছেই রাত্রিকালীন ফটোগ্রাফি একটি অতি আগ্রহের বিষয়। কারণ আলো থাকুক বা না থাকুক অথবা যে পরিসরেই থাকুক না কেন ছবি তোলা যদি প্যাশন হয়ে থাকে তবে ছবি তুলতেই হবে। সূর্যের আলো চলে যাওয়ার সাথে সাথে যখন সন্ধ্যা নেমে আসে, আপনি যেখানেই থাকেন না কেন সেই জায়গাটি হতে পারে একটি ম্যাজিকাল প্লেস।

Source: FixThePhoto

সেই ঐন্দ্রজালিক সময়ে কেউই চাইবে না পছন্দের কিছু ছবি মিস করতে। তাই এই সময়টি ফটোগ্রাফি করার জন্য একটি উল্লেখযোগ্য সময় হতে পারে। নিচের টিপসগুলো যদি অনুসরণ করেন সেক্ষেত্রে রাত্রিকালীন ফটোগ্রাফির ক্ষেত্রে এগুলো কাজে লাগতে পারে।

আকাশের রং পর্যবেক্ষণ করুন

সূর্যাস্তের এক ঘণ্টা আগে থেকে সূর্যাস্তের কিছুক্ষণ সময় পর্যন্ত সময়টাকে টোয়ালাইট বলে। সূর্যাস্তের আগে থেকে না হলেও সূর্যাস্তের কিছুক্ষণ পর থেকে এক ঘণ্টা পর্যন্ত এই টোয়ালাইট সময়টি বিস্তার করে থাকে। এই সময় হঠাৎ করে সূর্যের আলো উধাও হয়ে যেতে শুরু করলে আকাশে বেশ কিছু রঙের আভা দেখা দিতে শুরু করে। তাই এই সময়টি বুঝে ওঠা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সূর্যোদয়ের সময়ও এমন মুহূর্ত পাওয়া যায়।

Source: 500px ISO

এখানে ঘণ্টা উল্লেখ করা ব্যাপারটাও যথাযথ নয়, কারণ পৃথিবীর অবস্থানের কোন অক্ষাংশে আছেন সেটার উপর নির্ভর করে এই আলোর ছটাগুলো। গ্রীষ্মকালে উত্তর এবং দক্ষিণ গোলার্ধ খুব কম অন্ধকার পাওয়া যায় সন্ধ্যার দিকে এবং রাতেও এই টোয়ালাইট টার্মের সূচনা হতে পারে। যখন আপনি যে অঞ্চলে রাত্রিকালীন ছবিগুলো তুলবেন সেই অঞ্চলগুলো সম্পর্কে তীক্ষ্ণ পর্যবেক্ষণ এবং যথাযথ উপাত্ত থাকলে, আপনিও আপনার ক্যামেরা সেটিং আগে থেকে ঠিক করে নিয়ে ছবি তুলতে পারবেন। তাই ছবি তোলার আগে পরিবেশ এবং আকাশের আলোর পরিবর্তন সম্পর্কিত জ্ঞান থাকা উচিত।

ক্যামেরার ফ্ল্যাশ বন্ধ করে রাখুন

নাইট টাইম ফটোগ্রাফির প্রথম নিয়ম হলো ক্যামেরা সেটিংয়ের ফ্ল্যাশ বন্ধ করে রাখা। এটি হয়তো রাত্রিকালীন ফটোগ্রাফারদের মধ্যে ১০ জনের ৯ জনই বলে থাকবেন। আপনার ক্যামেরার সাদা আলোর সাথে অন্য আলোর প্রতিফলন এবং প্রতিসরণের ক্রিয়ার ফলে মূল ছবির কম্পোজিশনের এবং কালারের পরিবর্তন ঘটে যেতে পারে। তাই নাইট টাইম ফটোগ্রাফীর ক্ষেত্রে ফ্ল্যাশ বন্ধ করে রাখুন।

আপনার ক্যামেরা এবং সেটিংয়ের সাথে পরিচিত হোন

যদি আপনি DSLR ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলে থাকেন তাহলে অবশ্যই সব থেকে আগে আপনার ক্যামেরা এবং এর সেটিংয়ের সাথে পরিচিত হতে হবে। ক্যামেরার ম্যানুয়াল সেটিংস সব ক্যামেরায় কমবেশি সমান হলেও ক্যামেরার কালার, অ্যাপারচার, শাটার এগুলোর রকমফের হতে পারে। তাই আপনি যদি আপনার ক্যামেরার সাথে ভালোভাবে পরিচিত থাকেন তাহলে আপনি বুঝতে পারবেন কোন আলোর মধ্যে কত দ্রুত শাটার কমাতে বাড়াতে পারবেন, অ্যাপারচার এবং IOS পরিবর্তন কত দ্রুত করতে পারবেন।

Source: jamesgilmore

রাতে ভালো দৃশ্যগুলো ধরে রাখার জন্য আপনার ক্যামেরার একটি নির্দিষ্ট সেটিংয়ের ভারসাম্য রাখা প্রয়োজন। সেগুলো হচ্ছে IOS এবং শাটার স্পিড। IOS ক্যামেরা সেনসরে আলোর তীব্রতা নির্ণয় করে। একটি উচ্চতর IOS আপনার অল্প শাটার স্পিডে একটি ভালো ছবির সূচনা করতে পারে। যদি লং এক্সপোজার হয় তবে সেক্ষেত্রে আপনার শাটার স্পিড অনেক কম থাকে আর IOS বাড়িয়ে ছবি তুলতে হয়।

এই সেটিংগুলো যদি ভালোভাবে জানতে পারেন তাহলে ছবি তোলা সার্থক হবে। যদি কোনো মতে জেনে খুব বেশি শাটার স্পিডের সাথে অতিরিক্ত IOS যুক্ত করেন তাহলে ছবিতে প্রচুর গ্রেইন দেখতে পাবেন। তাই একটি DSLR ক্যামেরায় ভালো ছবি তোলার জন্য মেনুয়াল সেটিংস সম্পূর্ণরূপে বুঝে নেওয়া সব থেকে জরুরি।

চিন্তা করুন উপস্থিত আলোকে কীভাবে কাজে লাগাবেন

লং এক্সপোজার ছবিগুলোর ক্ষেত্রে খুব কম আলো পাওয়া যায়। আপনি যদি একটি গাড়ি চলার ট্রেইলের ছবি তুলতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে লং এক্সপোজার সেটিং ব্যবহার করতে হবে এবং অন্ধকারে লোকেদের ধরে রাখার জন্য আপনার শাটার স্পিড কিছুটা দ্রুততর করে নিতে হবে।

Source: 500px ISO

এ ছাড়া কোথাও ছবি তোলার আগে আশেপাশের আলোক স্বল্পতা বা আলোক আধিক্যের পরিমাণ ভালোভাবে খেয়াল করে নিয়ে তারপরে ক্যামেরা সেটিং করতে হবে। হুট করে দাঁড়িয়ে যে কোনো আলোতে যেকোনো সেটিংয়ে ছবি তুললে ছবি তোলা নিরর্থক হতে পারে।

ট্রাইপড ব্যবহার করুন

লং এক্সপোজার ছবি তোলার ক্ষেত্রে অবশ্যই একটি ট্রাইপড রাখা জরুরি, কারণ এই ছবির ক্ষেত্রে ক্যামেরার কম্পন ছবিকে নষ্ট করে দিতে পারে। তাই ভালো ছবি তোলার সর্বোত্তম উপায় একটি ট্রাইপড ব্যবহার করা। সাধারণত হাতে নিয়ে লং এক্সপোজার ছবি তুলতে গেলে হাতের সামান্য কম্পনের ফলে দীর্ঘ শাটার স্পিডের জন্য ক্যামেরা কেঁপে যায়।

Source: Finding the Universe

এই ক্ষেত্রে যে ছবিটি তুলবেন সেই ছবিটিও কাঁপা কাঁপা আসতে পারে। যদি আপনি ভারী কোনো ট্রাইপড ইউজ করেন তাহলে ক্যামেরা নড়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ থাকবে না ।তাই ট্রাইপড ব্যবহার করলে কোনো রকম কাঁপাকাঁপি ছাড়াই উপযুক্ত ছবিটি সহজে পাওয়া যাবে।

ট্রাইপড না থাকলে যেটি করবেন

কোথাও ঘুরতে যাওয়ার সময় ট্রাইপডের ওজন একটি উটকো ঝামেলা বলে মনে হয়। তাই যদি আপনার কাছে ট্রাইপড না থাকে সে ক্ষেত্রে রাতের ছবি তো মিস করা যাবে না। এর জন্য আপনি একটি পদ্ধতি ফলো করতে পারেন। যেমন, আর্মিতে স্নাইপাররা যখন দূরের কোনো লক্ষ্যবস্তু ভেদ করার জন্য গুলি করে তাদের একটি নির্দিষ্ট পদ্ধতি ফলো করে।

যে পদ্ধতিতে তারা খুব গভীরভাবে রাইফেলের সাথে মিশে যায় এবং নিঃশ্বাসের প্রক্রিয়া কিছুটা স্বাভাবিক থেকে কিছুটা ভিন্ন কায়দায় নিয়ে থাকে। সেরকমই ক্যামেরাটি আপনার হাতে থাকায় স্বাভাবিক ব্যাপার। কোনো একটা নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তু ফোকাস করার পর ক্যামেরাটিকে হাতে রেখে পারলে ভালো কোনো জায়গা দেখে শুয়ে পড়ুন এবং নিঃশ্বাস প্রশ্বাস কিছুটা ধীরগতিতে নেবার চেষ্টা করুন।

Source: Fstoppers

যাতে নিঃশ্বাসে শরীরের কম্পন ক্যামেরা পর্যন্ত না পৌঁছায় এবং ক্যাপচার বাটন চাপার পর যদি পারা যায় কিছুক্ষণ নিঃশ্বাস বন্ধ করে রাখার চেষ্টা করুন। যদি শাটার স্পিড ৩০ সেকেন্ড বা তারও বেশি হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি কোনো সমতল জায়গা নির্বাচন করুন। এরপর সেখানে ক্যামেরা রেখে ছবিটি তুলতে পারেন। যেমন কোনো সমতল জায়গায় ক্যামেরা রেখে যদি আকাশের ছবি তুলতে চান সে ক্ষেত্রে, লেন্সের নিচে ছোটখাটো পাথর রেখে ক্যামেরার মুখ উঁচু করে রাখতে পারেন। এক্ষেত্রে হয়তো ভালো ফলাফল পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।

বার বার ছবি তোলার অনুশীলন করুন

আপনি যেখানে থাকেন তার আশেপাশে বিশাল খোলা আকাশ না থাকলে মিল্কিওয়ের ছবি তোলা প্রায় অসম্ভব। এর জন্য আপনি রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে গাড়ির ট্রেইল এবং আলোকরেখার লং এক্সপোজার শটগুলো নিতে পারেন। রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে খুব সহজেই আপনি এই প্র্যাকটিস করতে পারবেন। এরপর একই নীতি অনুসরণ করে আপনি খোলা জায়গায় মিল্কিওয়ের ছবি নিতে পারেন।

Source: Google AI Blog

যত বেশি অনুশীলন করবেন তত বেশি ভালোভাবে এই লং এক্সপোজার ছবিগুলো তুলতে পারবেন। সাধারণ ক্যামেরাগুলোতে ৩০ সেকেন্ডের বেশি শাটার স্পিড থাকে না। তাই আপনি যদি এর থেকে বেশি বেশি চান সেক্ষেত্রে আপনাকে রিমোট ব্যবহার করতে হবে। যেটি ব্যবহার করে আপনি ১-২ মিনিট বা তারও বেশি সময় ধরে লং এক্সপোজার শটগুলো নিতে পারবেন।

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এবার ঘরে ফিরে সংসারি হয়ে যাবো!

স্মৃতিতে নাটোর