৭টি পরিচিত স্থান যার গোপন তথ্য আপনি জানেন না

কিছু সাইকোলজিস্ট দাবি করে থাকেন,আমরা যখন বিশ্বের যেকোনো একটি জায়গার চাকচিক্যময়, আকর্ষণীয় এবং বিশ্লেষণমূলক ছবি দেখি তখন সেই জায়গা সম্পর্কে আমাদের মনে এক ধরনের বিভ্রমের সৃষ্টি করে থাকে। কারণ যদি এটি দেখতে আকর্ষণীয় না হয় তবে আমরা খুব একটা নজর দেই না। যেকোনো সময়ে ছোট্ট একটি ব্যাপার নিয়েই সচেতন থাকি আমরা, আমাদের চারপাশে কী আছে তা ঠিক আছে কিনা।

কিন্তু এই সচেতনতার মাঝেই আমরা লুকানো ব্যপারগুলো লক্ষ্য করতে ভুলে যাই। যেমন রেফ্রিজারেটর খুললেই সবসময় আলো জ্বলতে থাকে কারণ অন্ধকার হলে আমরা ঠিক মতো নজরও দেই না। তাই এই লেখায় এমন সব জায়গার উল্লেখ করবো যে জায়গাগুলোতে হয়তো আপনি অনেকবার গিয়েছেন কিন্তু কখনই জানা হয়নি কোথায় তাকালে আপনি জায়গাটির বিস্তারিত জানতে পারবেন বা হয়তো এমন কিছু গোপন তথ্য যা ওই জায়গায় যাওয়ার পরও আপনি জানেন না।

১. ডিজনিল্যান্ডস সিক্রেট ক্লাব থার্টিথ্রি

ক্লাব থার্টিথ্রি:source:disneytouristblog.com

ডিজনিল্যান্ডের নতুন অর্লিন্স স্কয়ার সেকশনের মধ্যবর্তী স্থানে একটি সীমাতিক্রান্ত-অপ্রকাশ্য এক্সক্লুসিভ রেস্টুরেন্ট হলো ক্লাব থার্টিথ্রি। ওয়াল্ট ডিজনি ভ্রমণকারী ডোনার, সেলিব্রিটি এবং রাজনীতিবিদদের বিনোদনের জন্য একটি জায়গার প্রয়োজন বোধ করেছিল।

কিন্তু দুঃখজনকভাবে এটা আনুষ্ঠানিকভাবে ১৯৬৭ সালের  মে মাসে খোলা হলেও তাঁর কিছু মাস পরই ওয়াল্ট ডিজনি মারা যান। সেখানে জয়েনিং ফী ২৫ হাজার ডলার এবং ১ বছরের মেম্বারশিপের জন্য ১০ হাজার ডলার প্রদানের একটি লম্বা ওয়েটিং লিস্ট রয়েছে।

২. গুস্তাভ আইফেলস প্রাইভেট এ্যাপার্টমেন্ট

গুস্তাভ আইফেলস প্রাইভেট এ্যাপার্টমেন্ট:source:www.slate.com

দ্য আইফেল টাওয়ার ১৮৮৯ সালে পূর্ণতা পেয়েছিল এবং এটা খুব জলদি বিশ্বে পরিচিতি পেয়েছিল। ডিজাইনার গুস্তাভ আইফেল নিজের কথা ভুলে যাননি, তাই তিনি এর একেবারে চূড়ায় একটি ছোট্ট এ্যাপার্টমেন্ট তৈরি করেছিলেন।

উচ্চ পার্সিয়ান সমাজের অনেকেই আকাশের কাছাকাছি তাঁর এই ছোট্ট আরামদায়ক নীড় ভাড়া করতে চেয়েছিল কিন্তু তিনি সকলকেই ফিরিয়ে দেন। তিনি এটি ব্যবহার করতেন গভীর চিন্তা করার জন্য এবং থমাস এডিসনের মতো স্বনামধন্য অতিথিদের আতিথেয়তা করার জন্য। বর্তমানে এই এ্যাপার্টমেন্টটি শুধু ভ্রমণকারীদের পরিদর্শন করার জন্য রাখা আছে।

৩. নিউইয়র্কের গ্র্যান্ড সেন্ট্রাল ষ্টেশনের ট্র্যাক সিক্সটি ওয়ান

ট্র্যাক সিক্সটি ওয়ান:source:www.louvac.com

ওয়াল্ডর্ফ এ্যস্টোরিয়া হোটেলের বলরুম অর্থাৎ বলনাচ অনুষ্ঠানের হলঘরের নিচে গভীরে একটি গোপন প্রান্ত রয়েছে যা ১৯৩০ সালে জানা গিয়েছিল। গ্র্যান্ড টার্মিনাল পুরোপুরি তৈরি হওয়ার পর ট্র্যাক সিক্সটি ওয়ানে প্রেসিডেন্ট ফ্র্যাঙ্কলিন ডেলানো রুজভেল্ট এখানে সবার অগোচরে থাকতেন কারণ তাঁর পোলিও হওয়ার কারণে তাকে হুইলচেয়ারে থাকতে হতো এবং তিনি চাইতেন না নিজেকে এভাবে দেখাতে।

যদিও এটা নিশ্চিত করা কঠিন, তবে ধারণা করা হয় প্রেসিডেন্ট এবং সেলিব্রেটিরা শহর ঘুরতে আসলে ট্র্যাক সিক্সটিওয়ানে এখনো নিজেদের গোপন করে থাকে।

৪. এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংয়ের ১০৩ তলার বারান্দা

এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংএর ১০৩ তলার বারান্দা:source:travelandleisure.com

টুরিস্টরা সাধারণত এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিং এর ৮৬ তলার সৌন্দর্যই পর্যবেক্ষণ করে। প্রবল উৎসাহীদের কেউ কেউ এলিভেটরে করে ১০২ তলা পর্যন্ত যায় শক্ত জানালার পেছন থেকে এত উঁচুতে বাইরের দৃশ্য দেখতে। কিন্তু খুবই কম মানুষ জানে যে সেখানে আরও একটি গোপন তলা রয়েছে। তবে এটা শুধু কিছু সাহসী তারকাদের জন্য রিজার্ভ করা।

৫. ভারতের ন্যাশনাল লাইব্রেরির গোপন চেম্বার

ভারতের ন্যাশনাল লাইব্রেরির গোপন চেম্বার:source:tripedia.info

ন্যাশনাল লাইব্রেরির এই বিল্ডিংটির ইতিহাস শুরু হয়েছিল রাজশাসনামলে। আর তাই হয়তো প্রত্নতাত্ত্বিকরা এই ২৫০ বছরের পুরানো বিল্ডিংয়ের একটি রহস্যময় রুম সকলের সামনে উন্মোচন করতে বেশি উৎসাহী ছিল। যে রুমের কথা কেউ জানত না, কেউ ঢুকতেও পারত না কারণ এই রহস্যময় রুমের না ছিল কোনো দরজা, না জানালা এমনকি কোনো গুপ্ত দরজাও ছিল না।

বিজ্ঞানীরা ভেবেছিল এই রুমটি হয়তো টর্চার রুম ছিল অথবা এখানে হয়তো এমন কোনো সম্পদ লুকায়িত আছে যা কল্পনার বাইরে। কিন্তু তারা সবাই ভুল প্রমাণিত হলো এবং হতাশ হলো। কারণ দেখা গেলো রুমটি কাদা-মাটি দিয়ে ভরাট ছিল আর এটা সকলের কাছে রহস্যময় রুম হিসেবেই থেকে গেছে।

৬) টাইমস স্কয়ারের লক্ষণীয় গোপন স্থান

টাইমস স্কয়ারের লক্ষণীয় গোপন স্থান:source:brightside.guru

সব জায়গার গোপন স্থান অদৃশ্যমান হয়ে থাকে না। কখনো কখনো আমরা এরকম গোপন স্থানগুলোও দেখে থাকি। জনপ্রিয় টাইমস স্কয়ার বিল্ডিং যেখানে প্রতি বছর নিউইয়ারের ইভ বল ড্রপ হয় আর এটা নিজের ছোট্ট এই রহস্য এভাবেই ধরে রাখে। অথবা কোনো কিছুই রাখে না , আশ্চর্যজনকভাবে এটা খালি।

ওয়ালগ্রিন্স প্রথম ৩ তলা ভাড়া নিয়ে রেখেছে। আর উপরের তলাগুলো টাইমস স্কয়ার প্রোডাকশনের ম্যানেজমেন্ট টিমের নিউ ইয়ার ইভের জন্য দখল করা। এই দুইয়ের মাঝে এখানে আর বেশি কিছু নেই। যা আসলেই রহস্যময় এমন একটি সেন্টার স্থানের জন্য।

৭. গ্র্যান্ড সেন্ট্রাল টার্মিনালের দ্য ভ্যান্ডারবিল্ট টেনিস ক্লাব

১৯৬০ সাল থেকে আরেকটি গোপন বিষয় লুকিয়ে রেখেছে গ্র্যান্ড সেন্ট্রাল টার্মিনাল, তা হলো এর উপরের লেভেলে এক্সক্লুসিভ টেনিস কোর্ট। তারা একসময় এটিকে পাব্লিক করে রেখেছিল কিন্তু এরপর ১৯৮৪ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্প এর দ্বায়িত্ব নিয়ে নেয় এবং এটিকে প্রাইভেট টেনিস ক্লাবে রূপ দেয় যেখানে শুধুমাত্র সেলিব্রেটিস এবং অন্যান্য ধনী ব্যক্তিরাই টেনিস খেলতে পারবে।

২০০৯ সালে ভ্যান্ডারবিল্ট ক্লাব পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং সেখানে মেট্রো নর্থ রেইলরোডের ফুল-সার্ভিস লাউঞ্জ শুরু হয়। ২০১১ সালে আবারো নতুন করে কোর্ট গঠন করা হয় এবং ভ্যান্ডারবিল্ট টেনিস ক্লাব নতুন কন্সট্রাকটেড বিল্ডিংয়ের চতুর্থ তলায় নিয়ে যাওয়া হয়।
ফিচার ইমেজ- ancient-origins.net

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

মেঘালয়ে মেঘবিলাস: লাইতলুম ক্যানিয়নের মুগ্ধতা

মুগ্ধতায় মোড়ানো সেন্ট মার্টিনস দ্বীপ