১০টি স্থান যা এখনও অনেক ভ্রমণপ্রিয়র কাছেই অচেনা

লেক বৈকাল, রাশিয়া

যদি বলি আমি বিশ্বের দশটি গোপন স্থানের নাম আপনাদের জানাবো যেগুলো সম্পর্কে আপনি জানেন না অথবা অনেক ভ্রমণপ্রিয়রাই এখনও সেখানে যেতে পারেননি তবে আমি কিন্তু একদম সত্যি বলছি না। যেহেতু ভ্রমণপ্রিয় কাজেই কিছু জায়গা আপনার পরিচিত হতেই পারে। তবে হ্যাঁ, কিছু জায়গা অবশ্যই আছে যেগুলো সম্পর্কে অনেকের কাছেই এখনও তথ্য নেই। সেটা হতে পারে পানির নিচের অন্যরকম এক দুনিয়া, প্রাকৃতিকভাবে গড়ে ওঠা ঐতিহাসিক লেক অথবা পুরো মানবজাতি থেকে আলাদা হয়ে থাকা একটি দ্বীপবাসী।

চেনা-অচেনার মিশেলে এমনই কিছু স্থানের কথা চলুন জেনে নিই-

১০. হুয়াচাচিনা, পেরুভিয়ান ডেজার্ট

অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় মানুষদের জন্য পেরুভিয়ান ডেজার্ট হুয়াচাচিনা বলতে গেলে একটি আদর্শ জায়গা। লিমা থেকে দক্ষিণ দিকে পাঁচ ঘণ্টার পথ পেরোলেই পৌঁছানো যাবে এই মরুভূমিতে।

  হুয়াচাচিনা, পেরুভিয়ান ডেজার্ট, Source: Elite Readers

এই মরুভূমিতে রয়েছে প্রাকৃতিকভাবে তৈরি হওয়া একটি লেক। অসাধারণ এই প্রাকৃতিক পরিবেশ দেখার পাশাপাশি ভ্রমনপ্রিয়রা চাইলে বগিগাড়িতে চড়ে বালিয়াড়ি পাহাড়েও ঘুরে বেড়াতে পারেন।

৯. নর্থ সেনটিনেল আইল্যান্ড

আন্দামান দ্বীপপুঞ্জের একটি দ্বীপের নাম নর্থ সেনটিনেল দ্বীপ। গোপন এই দ্বীপটি কোনো মানুষের জন্যই নিরাপদ নয়। সমুদ্র তীরের ছোট এই দ্বীপে যখনই কোনো মানুষ সাহস করে প্রবেশের চেষ্টা করেছে তখনই এই দ্বীপের মানুষগুলো তাদের নির্দয়ভাবে হত্যা করেছে।

নর্থ সেনটিনেল আইল্যান্ড Source: Elite Readers

বিস্ময়ের ব্যাপার হচ্ছে বিগত ৬০,০০০ বছর ধরে এই দ্বীপের মানুষরা বহিরাগতদের প্রত্যাখান করে আসছে।

৮. সামারকান্দ, উজবেকিস্তান

একজন ভ্রমণপ্রিয় হিসেবে যদি একইসাথে সংস্কৃতি, সৌন্দর্য আর কিংবদন্তী ব্যক্তি সম্পর্কে আপনার জানার আগ্রহ থাকে তাহলে চলে যেতে পারেন উজবেকিস্তানের সামারকান্দে তামেরলেনের (তৈমুর) দরগাহ শরীফে। ইতিহাসের অনেক গল্পের সাথে প্রাচীন সংস্কৃতির সাথে পরিচিত হয়ে উঠতে পারবেন। এখানে আরও রয়েছে ঐতিহ্যবাহী মসজিদ যা আপনাকে ইতিহাসের সোনালী সময়ের আরও অনেক কাছাকাছি নিয়ে যাবে।

সামারকান্দ, উজবেকিস্তান Source: Elite Readers

ঐতিহাসিক অনেক স্মৃতি নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা এই জায়গাটিকে ‘সংস্কৃতির এড়ো পথ’ নামে নামকরণ করেছে ইউনেস্কো।

৭. সমুদ্রের নিচে ইথা রেস্টুরেন্ট, মালদ্বীপ

সমুদ্রে জাহাজে করে ঘুরে বেড়িয়েছেন- এমনটা ভ্রমণপ্রিয় হলে আপনার জন্য খুব স্বাভাবিক একটা ব্যাপার। এক দেশ থেকে আরেক দেশে যাওয়াটাও কঠিন নয়। পানির নিচে প্রাণিদের জীবন দেখতে সেখানেও হয়তো ঘুরে এসেছেন অনেকে। কিন্তু তাই বলে সমুদ্রের নিচে রেস্টুরেন্ট?

ইথা রেস্টুরেন্ট, মালদ্বীপ Source: Elite Readers

বিস্মিত হচ্ছেন? আপনার বিস্ময়ের ঘোর কাটবে যদি আপনি চলে যান মালদ্বীপের ইথা রেস্টুরেন্টে। ভারতীয় সাগরের নিচে অবস্থিত ভিন্ন অভিজ্ঞতার এই রেস্টুরেন্টটির ডিজাইন করেছে নিউজিল্যান্ডের ডিজাইন ফার্ম এম জে মরফি লিমিটেড। এটি ২০০৫ সালে উদ্বোধন করা হয়।

এখানে যে আপনি শুধু খাবার খেতে আসবেন তাই নয়। চাইলে যে কোনো ধরনের অনুষ্ঠানের জন্য আপনি ইথাকে বুকও করতে পারেন। এই রেস্টুরেন্টে আন্তর্জাতিক এবং মালদ্বীপের অসাধারণ আর মজাদার বিভিন্ন স্বাদের খাবার পরিবেশন করা হয়।

৬. উত্তর-পূর্ব মরক্কোর শেফচাওয়েন    

উত্তর-পূর্ব মরক্কোতে শেফচাওয়েন নামে খুব ছোট্ট একটা শহর আছে। ছোট আর নীরব এই শহরটির অবস্থান রিফ পর্বতে। এই জায়গাটি পুরো পৃথিবীতে একমাত্র জায়গা যেটি সম্পূর্ণ নীল। যদিও এই শহরের সব নীল তবু এই নীল আবার শুধু একরকম নয়। নীলেরও রয়েছে বিভিন্ন শেড। তবে নীল যেখানে যেমনই হোক না কেন, শহরটিতে প্রবেশ করলে মন্ত্রমুগ্ধ না হয়ে উপায় নেই!  

শেফচাওয়েন, উত্তর-পূর্ব মরক্কো Source: Elite Readers

বিভিন্ন নীলের সমাহারে সাজানো প্রাচীন এই শহরটি পরিচিত ‘দ্য মদিনা’ নামে।

৫. গারাজোনা ন্যাশনাল পার্ক, ক্যানারি আইল্যান্ড

ক্যানারি আইল্যান্ডের গারাজোনা ন্যাশনাল পার্কটি বিখ্যাত লওরিসিলিভা গাছের জন্য। এই পার্কে রয়েছে নানা প্রজাতির প্রাণিকূল। বছরের প্রায় পুরোটা সময় হালকা কুয়াশাচ্ছন্ন থাকে এই পার্ক।

গ্যারাজোনা ন্যাশনাল পার্ক, ক্যানারি আইল্যান্ড Source: Elite Readers

আপনি যখন মোহময় এই পার্কে ঘুরতে যাবেন আপনার কাছে মনে হবে আপনি খুব সাজানো একটি সিনেমার সেটে চলে এসেছেন। আলো আঁধারির ছায়া মেশানো এ পার্কটি আপনাকে মোহময় করে রাখবে পুরোটা সময়।

৪. কাপ্পাডোকিয়া, তুর্কী

তুর্কীর কাপ্পাডোকিয়া একটি ঐতিহাসিক জায়গা। ভূমি থেকে ১,০০০ মিটার উচ্চতায় এর অবস্থান।

কাপ্পাডোকিয়া, তুর্কী Source: Elite Readers

ভ্রমণপ্রিয়রা এ জায়গায় আসে ট্রেকিং করতে অথবা হট এয়ার বেলুনে চড়ে ঘুরে বেড়াতে। সাহস করে একবার চলে যাবেন নাকি এ উচ্চতায় হট এয়ার বেলুনে চড়ে ঘুরে বেড়াতে?

৩. লেক বৈকাল, রাশিয়া

লেক বৈকাল বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো আর সর্ব বৃহৎ লেক। এই লেককে বলা হয় বৃহৎ পরিষ্কার পানির লেক হিসেবে। কারণ এই লেকটি সমগ্র বিশ্বের ২০ শতাংশ পরিষ্কার পানি দ্বারা বিদ্যমান।

লেক বৈকাল, রাশিয়া Source: Elite Readers

অবাক করা ব্যাপার হচ্ছে, এই লেকে যে পরিমাণ পানি রয়েছে তা উত্তর আমেরিকার সমন্বিত গ্রেট লেকের চাইতেও বেশি! সামুদ্রিক বেশ কিছু প্রাণির বসবাসের স্থান এই লেক, যে প্রাণীগুলো পৃথিবীর অন্য কোথাও পাওয়া যায় না।

এই লেকের আশেপাশে আছে নানা প্রজাতির প্রাণিকূল। যেমন, ইউরেশিয়ান ব্রাউন বিয়ার, ইউরেশিয়ান নেকড়ে, লাল শিয়াল, বেজি, হরিণ, কাঠবিড়াল। ধারণা করা হয়, এই লেকের বয়স ২৫-৩০ মিলিয়ন বছর। এর গভীরতা ১,৬৪২ মিটার অর্থাৎ ৫,৩৮৭ ফুট। 

এত প্রাচীন এই লেকে ঘুরে এসে স্মৃতির খাতার পরিধি বাড়ানোটা খুব সহজ নয় কিন্তু!

২. গ্রীন লেক, অস্ট্রিয়া

অস্ট্রিয়ার স্টাইরায় একটি গ্রাম আছে। গ্রামটির নাম ট্রাগব। সেই গ্রামেই রয়েছে অদ্ভুত সুন্দর সবুজ পানির একটি লেক। লেকটি পর্বত আর বন দিয়ে ঘেরা। পানির রঙ সবুজ বলে লেকটির নামকরণ করা হয়েছে ‘গ্রীন লেক’ নামে। 

গ্রীন লেক, অস্ট্রিয়া Source: Elite Readers

বন বলতে আসলে এখানে বুঝানো হয় প্রচুর সবুজ গাছকে। আর সবুজাভ এই লেকের পানির নিচে প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নিয়েছে সবুজ ঘাস যেগুলো পানির রঙ সবুজ দেখাতে আরও বেশি সাহায্য করে। 

প্রতি বছর কার্স্ট পর্বত থেকে যখন বরফ গলে লেকে এসে পড়ে তখন পানির নিচের পার্কটি ভেসে ওঠে। এ সময় লেকটি ২,০০০-৪,০০০ স্কয়ার মিটার পর্যন্ত দ্বিগুণ হয়ে যায়। লেকে থাকা বেঞ্চ, ব্রিজ আর গাছগুলো তখন পানির নিচে চলে যায়। লেকটি সাধারণত এক মিটার গভীর হয় কিন্তু তুষার গলে পড়াতে তখন এটির গভীরতা ১২ মিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়।

১. স্প্যানিশ সিনাগগ, প্রাগ  

ইহুদি ধর্মের নিকট অতি পবিত্রতম এক স্থানের নাম স্প্যানিশ সিনাগগ। বিখ্যাত মুরিশ নকশা ও স্থাপত্যশৈলী এই সিনাগগের বিশেষত্ব।

স্প্যানিশ সিনাগগ, প্রাগ Source: Elite Readers

ইউরোপের দেশ চেক প্রজাতন্ত্রের রাজধানী প্রাগের একটি ঐতিহাসিক ইহুদি অধ্যুষিত এলাকায় এর সন্ধান মেলে। অন্যান্য সিনাগগের থেকে ইহুদিদের নিকট স্প্যানিশ এই সিনাগগের বিশেষত্ব হলো এর দুটো স্থায়ী প্রদর্শনী।

প্রথম অংশটি এসেছে বোহেমিয়া ও মোরাভিয়া সিনাগগ যা সিলভার অংশে রয়েছে এবং অন্যটি ইহুদিদের ইতিহাসের বোহেমিয়া ও মোরাভিয়ার দ্বিতীয় অংশটির ধারক। এখানে শায়িত আছেন প্রাগের বিখ্যাত লেখক ফ্রাঞ্জ কাফকা।

Feature image source: Elite Readers

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ঘুরে আসি সুন্দরী সুন্দরবন

অপরূপ নির্মাণশৈলী আর নান্দনিকতায় পরিপূর্ণ যশোরের মণিহার সিনেমা হল