১০টি শহরের হাস্যকর নাম আর তার পেছনের গল্প


পৃথিবীতে এমন অনেক স্থান রয়েছে যার হাস্যকর অথবা অদ্ভুত নামকরন করা হয়েছে আর এর প্রত্যকটি নামের পেছনেই রয়েছে গল্প।তাছাড়া এমনও কিছু স্থান বা জায়গা রয়েছে যে স্থানগুলোর নাম হয়ত সে দেশে বা সে দেশের জনগনের কাছে খুব সাধারণ কিন্তু অন্যদের কাছে শুনতে অদ্ভুত শোনায়। এই লেখাটিতে এমনই কিছু স্থান নিয়ে লেখা হয়েছে, লেখা হয়েছে এই নামকরণের পিছনের গল্পটিও এবং এরসাথে আরও অনেক কিছু।

১) সিট্টেরটন


 সিট্টেরটন ;source-www.flicr.com

ইংল্যান্ডের ডরসেটের ছোট্ট একটি গ্রামের নাম সিট্টেরটন।এর আসল নাম কেউই জানে না তবে সেট্টেরটনের অর্থ হলো এমন একটি গ্রাম যা একটি নদীর উপর এবং যেটি কিনা নর্দমা হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।মজার কথা হলো সিট্টেরটন ইংল্যান্ডের শহর হলেও এটি জাপানিজ শব্দও বটে।জাপানিজরা সিট্টেরটন অর্থ শুভনববর্ষ বোঝায়।সিট্টেরটনের রোড   সাইন হিসেবে যা থাকে তা অনেক বার সুভিনিওর হিসেবে ব্যবহার করার জন্য অনেকে চুরি করে নিয়ে গেছে তাই এখন তারা মার্বেলের উপর গ্রামের নাম খোদাই করে রোড সাইন হিসেবে ব্যবহার করছে।

২) গোথাম


 গোথাম:sorce-www.brightside.com

দুর্ভাগ্যবশত এই গ্রামে গিয়ে আপনার কোনো সুযোগ নেই ব্যাটম্যানের সাক্ষাৎ পাওয়ার।কারন গোথাম ইংল্যান্ডের নট্টীঙ্ঘামশীরের ছোট্ট একটি গ্রাম মাত্র। গোথাম নামটি এসেছে পুরোনো ইংলিশ শব্দ ‘গোট হোম’ (goat home) থেকে।

৩)টোড সাক

‘টোড সাক’ লিখে ডিকশনারিতে সার্চ করলে এর অর্থ আসবে ‘ব্যাঙ চোষা’।অদ্ভুত লাগছে?টোড সাক আমেরিকার আরকানসাসে অবস্থিত। এর এই নামটি নিয়ে তাদের মধ্যে খুব অল্পই ব্যাখ্যা রয়েছে।কিছু মানুষ মনে করে থাকেন,এটি ফ্রেঞ্চ প্রবাদের একটি বিকৃত মতবাদ তা হলো ‘এটি একটি নদীর সংকীর্ণ সরু পথ’।

৪) চিকেন

চিকেন অর্থ মুরগী,তা আমরা সবাই জানি।কিন্তু চিকেন কি করে একটি শহরের নাম হতে পারে?হ্যাঁ,চিকেন একটি শহরেরই নাম।চিকেন নামের এই এলাকাটি ছিল টারমিগ্যান নামের এক জাতের পাখিতে ভরপুর।আর স্বর্ণের খোঁজে আসা খনি শ্রমিকেরা এই পাখি খেয়েই নিজেদের বাঁচিয়ে রাখত।১৯০২ সালের দিকে যখন এই শহরকে অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়া হয় তখন এর নাম ‘টারমিগ্যান’ হিসেবে প্রস্তাব করা হয়। অনেক মানুষ তখন এই নামটি পছন্দ করে কিন্তু কেউই এর সঠিক উচ্চারণের সাথে একমত পোষন করছিল না। তাই,স্থানীয়রা এমন লজ্জাজনক পরিস্থিথি এড়িয়ে চলার জন্য এর নাম দেয় ‘চিকেন’।আর তখন থেকেই এই শহরের নাম হয়ে যায় চিকেন।   

৫)ক্র্যাপ্সটোন

ইংরেজি ভাষা শত শত বছর ধরে পরিবর্তিত হয়েছে।হয়ত কোনো একটি শব্দ এখন আমরা যা বোঝাতে ব্যবহার করে থাকি তা হয়ত তখন ছিলই না অথবা অন্য কিছু বোঝাতে ব্যবহার হত।ইংল্যান্ডে একটি ছোট্ট শহর রয়েছে যার নাম “ক্র্যাপ্সটোন”।কেউ এই শহরের মূল নামটি বলতে পারে না কিন্তু বোঝা যায় নামটি অবশ্যই সাধারণ কিছুই ছিল।সেখানকার মানুষ বলে থাকে, এই জায়গাটি পাহাড়ি জায়গা ছিল এবং এখানকার মাটি দিয়ে কিছু একটা করা হতো।

৬) বোরিং

এই শহরটি আমেরিকার ওরেগনে অবস্থিত।শহরের নাম “বোরিং” দেখে আপনি মোটেও ভেবে নিবেন না এই শহরে গেলেই আপনি খুব জলদি বোর বা একঘেয়ে,বিরক্ত হবেন। ১৮৫৬ সালে আমেরিকারই একজন সৈনিক নাম উইলিয়াম হ্যারিসন বোরিং তাঁর পরিবার নিয়ে বসবাসের জন্য প্রথম এই শহরে আসেন, এবং তারপর শহরের নামকরণ করা হয় “বোরিং”। স্কটল্যান্ডের “ডাল” শহরের পাশেই আমারিকার “বোরিং” শহর।

৭) ডাল

ডাল, ইংরেজিতে এই ডাল অর্থ সাধারণত আমাদের মাথায় প্রথমেই যা আসবে তা হলো নির্বোধ।স্কটল্যান্ডের পের্থ এবং কিনরোজ দেশের ছোট্ট একটি গ্রামের নাম ডাল।পিক্টিসে এর অর্থ ফীল্ড বা মিডোও অর্থাৎ মাঠ। ইস্টার্ন এবং নর্দান স্কটল্যান্ডে এটি একসময় বলা হতো যা এখন এখন আর কেউ বলে না, বিলুপ্ত হয়ে গিয়েছে।

৪)মিডেলফার্ট

মিডেলফার্ট সেন্ট্রাল ডেনমার্কের একটি শহরের নাম। ড্যানিস ভাষায় সর্বপ্রথম এর নাম দেওয়া হয়েছিল মেইথায়েলফার।যার অর্থ মিডেল প্যসেজ বা ওয়ে। অর্থাৎ মধ্যমর্তী রাস্তা।ডেনিসদের জন্য খুবই সাধারণ একটি নাম এটি কিন্তু ইংলিশে এই শব্দটি খুবই হাস্যকর অর্থ বহন করে।

৯) নো নেইম
আমেরিকার গারফিল্ড দেশের একটি স্থানের নাম “নো ফিল্ড”।এই স্থানের নাম ‘নো নেইম’ হওয়ার পেছনে অনেক কাহিনী রয়েছে তবে এর মাঝে প্রচলিত যেটি তা হলো এই রাষ্ট্র যখন স্থানটির জন্য নাম ঠিক করার জন্য স্থানীয়দের কাছে প্রশ্ন পাঠিয়েছিল তখন স্থানীয়দের বেশিরভাগই শহরের নামের স্থানে ‘নো নেইম’ লিখেছিল।তাই এই রাষ্ট্র সরকারিভাবেই এই শহরের নাম ‘নো নেইম’ রেকর্ড করে দিয়েছিল। পরবর্তিতে এই নাম পরিবর্তনের চেষ্টা করা হলেও কিন্তু সেটি আর হয়ে ওঠে নি।

১০) ওবামা

কি?ওবামা নাম শুনে একটু চমকে গেছেন?নিশ্চয়ই ভেবে বসেছেন এই শহরটি হয়ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ওবামার হবে!এমন কিছু ভেবে থাকলে আপনার ভুল এখনই ভেঙ্গে যাবে। ‘ওবামা” নামের এই শহরটি আসলে জাপানে অবস্থিত।ওবামা শহর আর আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ওবামা,এই দুইয়ের মাঝে আসলে কোনো সংযোগ বা সম্পর্কই নেই,শুধুমাত্র নামের উচ্চারণের মিল ছাড়া।জাপানে ‘ওবামা’ বলতে তারা বোঝায় ‘ছোট্ট সৈকত”।
হাস্যকর নামের এই শহরগুলোর কোনটিতে আপনি যাবেন তার তালিকা এখনই করে ফেলতে পারেন পছন্দ মত।

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

গাঙ্গোত্রীর আরতি সন্ধ্যায়…

দুই দিন এক রাতে বিলাইছড়ির ধুপপানি, মুপ্পোছড়া ও ন'কাটা ঝর্ণার বাজেট ট্রিপ